Logo
শিরোনাম :
উখিয়ায় বকেয়া বিদ্যুৎ বিল আদায়ে উপজেলা প্রশাসনের অভিযানে আটক ২ প্রেস ক্লাবে নিজের শরীরে আগুন দেওয়া সেই ব্যবসায়ীকে বাঁচানো গেল না উখিয়ায় অস্ত্রসহ জাহাঙ্গীর ও আলমগীর চৌধুরী গ্রেফতার! উখিয়ায় বকেয়া বিদ্যুৎ বিল আদায়ে উপজেলা প্রশাসনের অভিযান আটক ১ উখিয়ার হরিণমারায় চলছে নির্বিচারে পাহাড় নিধন ঃ বন বিভাগের চোখে কালো চশমা উখিয়া বন রেঞ্জের দুধের গাভী বিট কর্মকর্তা বজলুর রশিদ? কক্সবাজারে অনলাইনে জুয়া, বাড়ছে অপরাধ উখিয়ার হলদিয়া পালংয়ে সন্ত্রাসীদের হামলায় আহত ২ ডেইলপাড়া সীমান্তের ইয়াবা জসিমকে গ্রেপ্তারে বেরিয়ে অস্ত্রসহ গুরুত্বপূর্ণ তথ্য ডেইলপাড়া সীমান্তের ইয়াবা জসিমকে গ্রেপ্তারে বেরিয়ে অস্ত্রসহ গুরুত্বপূর্ণ তথ্য

উখিয়ার বালুখালী সীমান্তের শীর্ষ ইয়াবা কারবারী জাহাঙ্গীরের রাজত্ব কে থামাবে?

রিপোর্টার নাম:
আপডেট সময় : শনিবার, ১১ ডিসেম্বর, ২০২১

সম্প্রতি কক্সবাজারের উখিয়া সীমান্তে পুলিশ ও বিজিবির সাথে বন্ধকযুদ্ধে একাধিক মাদক কারবারী নিহত হওয়ার ঘটনা ঘটলেও মাদক ব্যবসায়ীদের অন্যতম গডফাদার ও ইয়াবা ব্যবসায়ীদের জনক জাহাঙ্গীরকে গ্রেপ্তারের আওতায় আনতে সক্ষম হয়নি সংশ্লিষ্ট প্রশাসন। তার গ্রেপ্তারের বিষয়টি নিয়ে সচেতন মহলের মাঝে দেখা দিয়েছে মিশ্র প্রতিক্রিয়া। কেউ কেউ বলে বেড়াচ্ছে প্রশাসন বড়, নাকি জাহাঙ্গীর বড়?
সূত্রমতে, পালংখালী ইউনিয়নের বালুখালী গ্রামের আব্দুল মজিদের ছেলে এক সময়ের শ্রমিক মাদক মামলাসহ ডজনখানিক মামলার পলাতক আসামী জাহাঙ্গীর আলম প্রকাশ ইয়াবা জাহাঙ্গীর সময়ের ব্যবধানে ইয়াবার বদৌলতে আজ শূণ্যে থেকে কোটিপতি। নামে বেনামে গাড়ী,বাড়ী দোকানপাট, ঢাকা, চট্রগ্রাম ও কক্সবাজারসহ দেশের গুরুত্বপূর্ণ শহরে গড়ে তোলেছে অঢল সম্পদ। কিন্তু দেখার কেউ নেই।

গত ৯ ডিসেম্বর বালুখালী বিওপি’ র জোয়ানরা বালুখালীর ফুটবল খেলার মাঠ সংলগ্ন এলাকায় অভিযান চালিয়ে ৫৬ হাজার পিস ইয়াবাসহ সিএনজি চালক পালংখালী ইউনিয়নের ফারিরবিল গ্রামের আবুল কালামের ছেলে ফরিদুল আলম (৩০) কে আটক করলেও উক্ত ইয়াবার সাথে জড়িত আন্ডার গ্রাউন্ডে থাকা শীর্ষ ইয়াবা কারবারি জাহাঙ্গীরকে আটক করতে সক্ষম হয়নি সংশ্লিষ্ট প্রশাসন। উক্ত ইয়াবা আটকের ঘটনায় বিজিবি বাদী হয়ে ইয়াবা জাহাঙ্গীর ও ফরিদুল আলমকে প্রধান আসামী করে উখিয়া থানায় মাদক আইনের সংশ্লিষ্ট ধারায় একটি মামলা রুজু করেছে। যার মামলা নং ৫১, তারিখঃ ১০/১২/২০২১ইং।
স্থানীয় সচেতন মহলরা বলেন, ইয়াবা ব্যবসায়ীরা দেশ ও দেশের যুবসমাজ ধ্বংসকারী, এদেশে তাদের স্থান হতে পারে না। অতি শিঘ্রই জাহাঙ্গীরকে গ্রেপ্তার পূর্বক কঠিন শাস্তির আওতায় নিয়ে আসার জন্য জেলা পুলিশ সুপার, বিজিবির সেক্টর কমান্ডারের হস্তক্ষেপ কামনাও করেন।
শুধু তাই নয়, বিভিন্ন স্থানে শতাধিক গডফাদারের নেতৃত্বে পুরো উখিয়ায় অন্তত ৫০টি সিন্ডিকেট মোটা দাগের ইয়াবা লেনদেন ও পাচার কাজে লিপ্ত রয়েছে বলে অভিযোগ উঠেছে। সূত্রমতে, রাজনৈতিক ছত্র ছায়ায় লালিত ইয়াবা জাহাঙ্গীরের বিরুদ্ধে একাধিক মামলা ওয়ারেন্ট থাকা সত্বেও সর্বত্রে দাঁপিয়ে বেড়াচ্ছে কিভাবে?
সচেতন অভিভাবকদের অভিমত, বর্তমান ভয়াবহ জঙ্গী ও সন্ত্রাসী কর্মকান্ডের সাথে যেসব কিশোর, যুবকÑযুবতীরা জড়িয়ে পড়েছে, তাদের একটি অংশ মাদকাসক্ত ও মাদক পাচারের সাথে কোন না কোনভাবে সম্পৃক্ত রয়েছে বলে ধারণা করা হচ্ছে। তাদের মতে, কারা ইয়াবা পাচার করে বিপুল বিত্ত বৈভবের মালিক হয়েছে, তাদের সম্পর্কে আইন শৃংখলা রক্ষাকারী বাহিনী, বিশেষ করে র‌্যাব, গোয়েন্দা সংস্থা, জাতীয় রাজস্ব বোর্ড, দুর্নীতি দমন কমিশন সহ সমাজের স্থানীয় নেতৃবৃন্দের সমন্বিত প্রচেষ্টায় বা নজরদারির দ্রুত ব্যবস্থা না নিলে, আগামী প্রজন্ম খুবই অন্ধকারাচ্ছন্ন হয়ে পড়বে।
উখিয়া থানার অফিসার ইনচার্জ আহম্মদ সনজুর মোরশেদ, ইয়াবা ব্যবসায়ীদের চিহ্নিত করে জড়িতদের দ্রুত গ্রেপ্তারের আওতায় নিয়া আসা হবে বলে তিনি জানান।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published.

এ জাতীয় আরো খবর