সোমবার, ২৮ নভেম্বর ২০২২, ০১:০২ পূর্বাহ্ন
শিরোনাম :
উখিয়ায় পাহাড় কেখোদের হামলায় উপজেলা প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তা আহত সরকার বড় নাকি ভুমিদস্যু শাহাজান বড় ? কুতুপালংয়ে সরকারি খাস জায়গায় নির্মিত মার্কেট উদ্ভোধন উখিয়ায় ছোট ভাইয়ের হামলায় বড় ভাই আহত থাইংখালী বিট কর্মকর্তা বিকাশ দাশ এর নেতৃত্বে চলছে স্থাপনা নির্মানের উৎসব কে হচ্ছেন বালুখালী পানবাজার ব্যবসায়ী কল্যান সমবায় সমিতির অভিভাবক দোছড়ি বনে থেমে নেই পাহাড় কাটা – অসহায় বিট কর্মকর্তা কুতুপালং বাজার ব্যবসায়ী সমিতির নির্বাচনে সভাপতি প্রার্থী হলেন জাহাঙ্গীর আলম আসন্ন কুতুপালং বাজার ব্যবসায়ী সমিতির নির্বাচনে নুরুল ইসলাম সওদাগর সাধারন সম্পাদক পদপ্রার্থী আসন্ন কুতুপালং বাজার ব্যবসায়ী সমিতির নির্বাচনে মোহাম্মদ আলী সাধারন সম্পাদক পদপ্রার্থী

উখিয়ায় কৃষকের পাকাধান লুট, শালিসী বৈঠকে হামলা, বসতবাড়ী ভাংচুর – আহত ৫

Spread the love

উখিয়ায় স্বত্বদখলীয় জমির পাকাধান লুট করেছে প্রতিপক্ষ দৃর্বৃত্তরা। উক্ত পাকাধান লুটপাটের ঘটনা নিয়ে শালিসী বৈঠকে হামলা, বসতবাড়ী ভাংচুরের ঘটনায় বাধা দিতে গিয়ে ভুক্তভোগী পরিবারের ৫ সদস্য গুরুতর আহত হয়েছে। বুধবার সন্ধা ৫ টা থেকে রাত ৯টা পর্যন্ত এ নারকিয় তান্ডব চলে বলে জানিয়েছেন প্রত্যক্ষদর্শীরা। কিন্তু দেখার কেউ নেই।

ভুক্তভোগীদের উক্তি, দেশে আইন আছে, প্রয়োগ নেই ? উখিয়া থানা ও আদালতে মামালা বিচারাধীন থাকা সত্বেও আইনকে বৃদ্ধাঙ্গুলি ও ক্ষমতার দাপট দেখিয়ে হতদরিদ্র কৃষক আমির হোসনের পাকা ধান লুটপাট করে প্রায় লক্ষাধিক টাকার ক্ষতি সাধন করেছে বলে ভুক্তভোগী আমির হোসেন বিষয়টি নিশ্চিত করেন।
সরজমিন, ঘটনাস্থল ও এলাকার বেশ কয়েকজন লোকের সাথে কথা বলে জানা গেছে, উপজেলার রাজাপালং ইউনিয়নের হাজির পাড়া গ্রামের হতদরিদ্র ও জমির মালিক আমির হোসেন জানান, মঙ্গলবার রাতে প্রতিপক্ষ মৃত উলা মিয়ার ছেলে মির আহম্মদের নেতৃত্বে ১০/১৫ জন দুর্বৃত্ত তার ৮০ কড়া জমির পাকা ধান লুট করে নিয়ে যায়। উক্ত লুটপাটের ঘটনায় প্রতিপক্ষের ৭/৮ জনকে আসামী করে উখিয়া থানায় অভিযোগ দায়ের করিলে, অভিযোগের তদন্তকারী কর্মকর্তা এএসআই শাহজালাল বিষয়টি স্থানীয় ভাবে সমাধান করার জন্য শালিসী বৈঠকের আয়োজন করে। বুধবার বিকাল ৫ টার দিকে নুর হোটেলস্থ মুন্সীর অফিসে অনুষ্টিত বৈঠকে মির আহম্মদের লেলিয়ে দেয়া দুর্বৃত্তরা বৈঠকে হামলা চালায়। এ বিষয়ে শালিসকারক রুহুল আমিন মেম্বার ও মোকতার আহম্মেদ চৌধুরী ঘটনার সত্যতা স্বীকার করে বলেন, বুধবার রাত ৯ টার দিকে মির আহম্মদের লোকজন হাজির পাড়া গ্রামের ভুক্তভোগী আমির হোসনের বাড়ীতে হামলা ও লুটপাট করে। বাধা দিতে গেলে দুর্বৃত্তরা এলোপাতাড়ি মারধরে মোঃ আলী (৩৫), আমির হোসেন (৪৫), হাজেরা খাতুন (৩০), মোঃ আলী ফকির (৪৫) ও আমির হোসেন (৫৫) সহ ৫ জন গুরুতর আহত হয়। আহতদের শোর চিৎকারে লোকজন এগিয়ে এসে হামলাকারীদের কবল থেকে উদ্ধার করে উখিয়া হাসপাতালে ভর্তি করেন।
এ ব্যাপারে তদন্তকারী কর্মকর্তা শাহজালাল বলেন, আমির হোসেন বাদী হয়ে থানায় একটি লিখিত অভিযোগ দায়ের করেছে। অভিযোগটি তদন্ত কাজ চলছে বলে তিনি জানান। ঘটনার সাথে জড়িত মির আহম্মদের সাথে বারবার যোগা যোগের চেষ্টা করেও তাকে পাওয়া যায়নি।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *


পেইজ