উখিয়ায় রোহিঙ্গা সন্ত্রাসীদের হামলায় দুই উপজাতি গুরুতর আহত

pic-112.jpg

উখিয়া ক্রাইম নিউজ ডেস্ক::

উখিয়ায় রোহিঙ্গা সন্ত্রাসীদের হামলায় দুই উপজাতি গুরুতর আহত হয়েছে। শনিবার সকাল ৮ টার দিকে ঘটনাটি ঘটেছে।
জানা যায়, উখিয়ার ক্রাইম জোন নামে খ্যাত সীমান্তবর্তী পালংখালী ইউনিয়নের তেলখোলা গ্রামের ওমং চাকমার ছেলে চুকিনু চাকমা ও একই গ্রামের রবি চান তংচইঙ্গা ছেলে কিউতি চাকমা তংচইঙ্গার ভোগ দখলীয় জায়গায় দীর্ঘ দিন ধরে পানের বরজসহ বিভিন্ন প্রকারের ক্ষেত খামারের চাষাবাদ করে সংসার জীবন চালিয়ে আসছিল। এমতাবস্থায় মিয়ানমার জান্তা বাহিনীর হাতে নির্যাতন ও নিপীড়নের শিকার হয়ে বাংলাদেশে আশ্রীত রোহিঙ্গারা উল্লেখিত উপজাতিদের পানের বরজ, হলুদ ক্ষেত, আদা ক্ষেত, সীম ক্ষেত ও ছনখোলা হইতে বিভিন্ন তরি- তরকারি নিয়া গিয়া ও পান বরজ ভাঙ্গিয়া প্রায় ৬ লাখ টাকার ক্ষয়ক্ষতি সাধন করেছে। এসময় বাধা প্রদান করিলে থাইংখালী জামতলী শরনার্থী ক্যাম্পের আশ্রীত রোহিঙ্গারা ক্ষিপ্ত হইয়া উল্লেখিত দুই উপজাতিকে সশস্ত্র হামলা চালিয়ে গুরুতর জখম করে মাটিতে ফেলেদে। এসময় আহতদের শোর চিৎকারে পাশর্^বর্তী লোকজন এগিয়ে এসে অস্ত্রধারী রোহিঙ্গাদের কবল থেকে তাদের উদ্ধার করে উখিয়া হাসপাতালে ভর্তি করেন। কর্তব্যরত চিকিৎসক আহতরা এখনো সংখ্যামুক্ত নই বলে তিনি জানান। স্থানীয় বাউনু চাকমা প্রতিবেককে জানান, অস্ত্রধারী রোহিঙ্গাদের তান্ডবের ফলে আমরা এক প্রকার জিম্মি দষায় জীবন যাপন করছি। রোহিঙ্গা সন্ত্রাসীদের জন্য গরু, ছাগলসহ কোন প্রকার ক্ষেত খামার করতে পারছি না। সব কিছু তারা লুটপাট করে নিয়ে যায়। উক্ত অস্ত্রধারীদের বিরুদ্ধে কেউ প্রতিবাদ করলে তাকে মারধরের শিকার হতে হবে। চুকিনু চাকমা বাদী হয়ে রোহিঙ্গা সন্ত্রাসীদের বিরুদ্ধে থানায় একটি লিখিত এজাহার দায়ের করেন। এব্যাপারে উখিয়া থানার ওসি মোঃ আবুল খায়ের

Share this post

scroll to top