টেকনাফে যুবককে মিথ্যা ধর্ষণ মামলায় ফাসিয়ে হয়রানির চেষ্টা

unnamed-7.jpg

উখিয়া ক্রাইম নিউজ ডেস্ক::

টেকনাফে জমি সংক্রান্ত বিরোধের জের ধরে এলাকার চিহ্নিত ইয়াবা কারবারীরা পূর্ব পরিকল্পিত ভাবে এক নীরহ যুবককে মিথ্যা ধর্ষন মামলায় ফাঁসিয়ে হয়রানি করার অপচেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছে বলে অভিযোগ উঠেছে।
অনুসন্ধানে জান গেছে,
উপজেলার হোয়াইক্যং ইউনিয়নের কোনার পাড়া গ্রামের মৃত আব্দু শুক্কুরের ছেলে ফরিদ আলম একই ইউনিয়নের ঘিলাতলী গ্রামের মৃত ছৈয়দ আলমের ছেলে আবু শমা, আবু শমার ছেলে রুস্তম আলী ও কোরবান আলীর নিকট থেকে গত ২১ মার্চ ২০১৭ইং তারিখে ৭ লাখ টাকা দিয়ে ৬০ শতক পি এফ জমি ক্রয় করে থাকে বলে জানা যায়। উক্ত জমি ক্রয় করার পর থেকে এলাকার চিহ্নিত ইয়াবা কারবারী ও টেকনাফ সীমান্তের শীর্ষ ইয়াবা গডফাদার আওয়ামীলীগ নেতা নামধারী একাধিক মামলার আসামী নাজির হোসেন চৌধুরী ও তার চেইন অব কমান্ড আবু শমার ছেলে রুস্তম আলীর উক্ত জমিটি দখলে নেওয়ার জন্য জোর তৎপরতা চালিয়ে আসছিল। ফরিদ আলম প্রতিবেদককে অভিযোগ করে জানান, এলাকার চিহ্নিত ইয়াবা গডফাদাররা আমার উত্তান সহ্য করতে না পেরে পরিকল্পিত ভাবে আমার ক্রয়কৃত জমিটি দখলে নিতে ব্যর্থ হয়ে স্কুল ছাত্রীকে ৮ মাস ধরে ধর্ষন করেছি মর্মে একটি মিথ্যা সাজানো মামলায় ফাঁসিয়ে আমাকে সামাজিক ও রাজতৈকি ভাবে হয়রানি করে আসছে। শুধু তাই নয়, গত ১৫ মার্চ কক্সবাজার থেকে প্রকাশিত দৈনিক দেশবিদেশসহ একাধিক পত্রিকায় বিয়ের প্রলোভনে স্কুল ছাত্রীকে ৮ মাস ধরে ধর্ষন করেছি মর্মে পত্রিকায় একটি মিথ্যা বানোয়াট ও ভীত্তিহীন সংবাদ পরিবেশ করিয়ে আমার মান- সম্মান ক্ষুন্ন করার অপচেষ্টা ছাড়া আর কিছুই নই। আমি উক্ত মিথ্যা বানোয়াট ও ভীত্তিহীন সংবাদের তীব্র নিন্দা ও জোর প্রতিবাদ জানাচ্ছি। ভুক্তভোগী ফরিদ আরো জানান, আমার ক্রয়কৃত জমিটি আগামী এক সাপ্তাহের মধ্যে তাদেরকে লিখে না দিলে আমাকে জানে মেরে ফেলার ও হুমকি ধমকি দিয়ে আসছে বলে তিনি জানান। তাই আমি উক্ত মিথ্যা ও সাজানো মামলার পরিকল্পনাকারীদের বিরুদ্ধে তদন্ত পূর্বক ব্যবস্থা নেওয়ার জন্য জেলা পুলিশ সুপারের হস্তক্ষেপ কামনা করছি।

Share this post

scroll to top