উখিয়ায় র‌্যাবের অভিযানে ১১টি বন্দুক , রামদা, কিরিচ ও গোলাবারুদসহ ৩ সন্ত্রাসী আটক

Ukhia-arrest-3-with-11-arms-25.03.18-645x430.jpg

উখিয়া ক্রাইম নিউজ ডেস্ক::

জেলার উখিয়া থানার মধুরছড়া এলাকায় অভিযান চালিয়ে বিপুল পরিমাণ অস্ত্র গোলাবারুদসহ স্থানীয় ডাকাত শাহজাহান বাহিনীর সদস্য ৩ জন সদস্যকে গ্রেফতার করেছে র‌্যাব।  রবিবার ভোর সোয়া ৫টার দিকে র‌্যাব-৭ কক্সবাজার ক্যাম্পের ইনচার্জ মেজর মোহাম্মদ রুহুল আমিনের নেতৃত্বে উক্ত অভিযান চালানো হয়।

অভিযানে গ্রেফতার সন্ত্রাসীরা হল- ৯ মামলার পলাতক আসামী উখিয়ার রাজাপালং ইউনিয়নের মধুরছড়া এলাকার মৃত মোঃ আবুল কাশেমের ছেলে মোঃ আনোয়ারুল ইসলাম প্রকাশ আনু সালাম (২৮), দুই মামলার পলাতক আসামী ফলিয়াপাড়া এলাকার আবুল সামার ছেলে মোঃ নুরুল বশর বুলু (৩০) ও তিন মামলার আসামী একই এলাকার মো. আবদুস সালামের ছেলে মোঃ কামাল হোসেন ওরফে জসিম উদ্দিন (৩৩)। এসময় তাদের কাছ থেকে ১১টি আগ্নেয়াস্ত্র (একটি ওয়ান শুটারগান, ১০টি এসবিবিএল), ৩টি রামদা, একটি কিরিচ ও ৮ রাউন্ড গুলী উদ্ধার করা হয়। এই ঘটনায় গ্রেফতারকৃতদের বিরুদ্ধে অস্ত্র আইনে উখিয়া থানায় নতুন করে মামলা করা হয়েছে বলে জানান র‌্যাব-৭ কক্সবাজার ক্যাম্পের ইনচার্জ মেজর মোহাম্মদ রুহুল আমিন।

তিনি জানান, ১০/১২ জন অস্ত্রধারী ডাকাত রোহিঙ্গা ক্যাম্প সংলগ্ন মধুরছড়া এলাকায় অবস্থান করছে মর্মে খবর পেয়ে অভিযান চালিয়ে তাদের আটক করা হয়েছে। তারা ডাকাত শাহজাহান বাহিনীর সদস্য। কুতুপালং ক্যাম্পের পাশ্ববর্তী বনাঞ্চলে গত কয়েকদিন ধরেই এই বাহিনীর সন্ত্রাসীরা অবস্থান করে গোলাগুলী করে জনমনে আতংক সৃষ্টি করে আসছিল। এরপরই গোপন সূত্রে খবর পেয়ে অভিযান চালানো হয়। এনিয়ে ডাকাত সর্দার শাহজাহানসহ তার বাহিনীর মোট ১৭ জন সদস্যকে গ্রেফতার করেছে র‌্যাব। যাবজ্জীবন সাজাপ্রাপ্ত পলাতক আসামী ডাকাত সর্দার শাহজাহান প্রায় ৩ মাস আগে গত ২৯ ডিসেম্বর র‌্যাবের হাতের গ্রেফতার হয়ে বর্তমানে কারাগারে রয়েছে।

উখিয়া থানার ওসি আবুল খায়ের জানান, গ্রেফতার সন্ত্রাসী মোঃ আনোয়ারুল ইসলাম প্রকাশ আনু সালামের বিরুদ্ধে উখিয়া থানায় মোট ৯টি মামলা রয়েছে। এছাড়া মোঃ নুরুল বশর বুলু’র বিরুদ্ধে ২টি ও মোঃ কামাল হোসেন ওরফে জসিম উদ্দিনের বিরুদ্ধে ৩টি মামলা রয়েছে। তাছাড়া মোঃ আনোয়ারুল ইসলাম ও নুরুল বশর একাধিক ডাকাতি মামলার ওয়ারেন্টভূক্ত পলাতক আসামী।

Share this post

scroll to top