ইনানীতে প্রধান শিক্ষককের উপর হামলা – থানায় এজাহার

3pic-5.jpg

শাকুর মাহমুদ চৌধুরী উখিয়া ::

উখিয়ার ইনানী সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের মাঠ দখলপূর্বক সড়ক নির্মানকে কেন্দ্র করে এলাকার চিহ্নিত অস্ত্রধারীরা স্কুলের (ভারপ্রাপ্ত) প্রধান শিক্ষক শমসের আলমকে হামলা চালিয়ে গুরুতর আহত করেছে। গতকাল শুক্রবার সকাল ১০ টার দিকে ঘটনাটি ঘটেছে। প্রধান শিক্ষক শমসের আলমের উপর অস্ত্রধারীদের হামলার খবর এলাকায় ছড়িয়ে পড়লে শিক্ষক সমাজের মাঝে মিশ্র প্রতিক্রিয়া দেখা দিয়েছে এবং ক্ষোভের সঞ্চার হয়েছে।

সরজমিন ঘুরে জানা যায়, উপজেলার জালিয়াপালং ইউনিয়নের সুনামধন্য শিক্ষা প্রতিষ্টান ইনানী সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের মাঠটি বড় ইনানী গ্রামের মৃত বদিউর রহমানের পুত্র এলাকার চিহ্নিত ভুমিদস্যু অস্ত্রধারী নুরুল হক আনসারী প্রকাশ ককটেল মৌলভীর নেতৃত্বে মিজানুর রহমান, নুরার ডেইল গ্রামের ফরুক আহম্মদের পুত্র মোঃ আলম, নুরুল হকের পুত্র মোহাম্মদ উল্লাহ, উরি মিয়ার পুত্র ছৈয়দ হোছন, ইনানী গ্রামের মৃত জাফর আলমের পুত্র রশিদ আহম্মদ, মৃত আবুল খায়েরের পুত্র হাবিবুল্লাহ, মৃত আবুবক্করের পুত্র মোক্তার মিয়া, মৃত আব্দুল জলিলের পুত্র ফারুক আহম্মদ, ফাতেমা ইয়াছমিন, হাবিবুল্লার স্ত্রী খোরশিদা বেগম ও ফারুক আহম্মদের স্ত্রী জাহেদা বেগমসহ শীর্ষরা শুক্রবার সকাল ১০ টার দিকে ইনানী সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে (ভারপ্রাপ্ত) প্রধান শিক্ষক শমসের আলম স্কুল মাঠের সীমানা নির্ধারন করতে গেলে স্থানীয় সাবেক ইউপি সদস্য ছলিমুল্লাহ মেম্বারের উপস্থিতিতে এলাকার চিহ্নিত অস্ত্রধারী ককটেল মৌলভীর নেতৃত্বে উল্লেখিত অস্ত্রধারীরা পূর্ব পরিকল্পিত ভাবে হত্যার উদ্দেশ্য প্রধান শিক্ষককে ধারালো অস্ত্রের আঘাতে গুরুতর জখম করে মাটিতে ফেলে দেয়। এসময় পার্শ্ববর্তী লোকজন এগিয়ে এসে অস্ত্রধারীদের কবল থেকে আহতকে উদ্ধার করে উখিয়া হাসপাতালে ভর্তি করেন। কর্তব্যরত ডাক্তার আহত শাংকামুক্ত নয় বলে জানান।
স্কুল পরিচালনা কমিটির সভাপতি আদনান চৌধুরী বলেন, এলাকার চিহ্নিত অস্ত্রধারীসহ শীর্ষদেরকে অতিশিঘ্রই গ্রেপ্তারপূর্বক কঠিন শাস্তির আওতায় নিয়ে আসার জন্য জেলা পুলিশ সুপার ও উপজেলা নির্বাহী অফিসারের হস্তক্ষেপ কামনা করছি। স্কুলের প্রধান শিক্ষক শমসের আলম বাদী হয়ে ১২জনকে আসামী করে উখিয়া থানায় একটি লিখিত এজাহার দায়ের করেন।
এ ব্যাপারে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মোঃ নিকারুজ্জামান প্রধান শিক্ষককে হামলার সাথে জড়িতদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়ার জন্য উখিয়া থানার ওসিকে ব্যবস্থা নেওয়ার জন্য নির্দেশ প্রদান করা হয়েছে বলে তিনি জানান। উখিয়া থানার ওসি মোঃ আবুল খায়ের ঘটনার সত্যতা স্বীকার করেন এবং শিক্ষক হামলার সাথে জড়িতদের বিরুদ্ধে তদন্তপূর্বক ব্যবস্থা নেওয়া হবে বলে তিনি জানান।

Share this post

scroll to top