জোড়া খুনসহ ডজন মামলার আসামী ফেচুক্রর হাতে ১০ হাজার মানুষ জিম্মি

MM.jpg

উখিয়া ক্রাইম নিউজ ডেস্ক::

উখিয়ার মনখালী এলাকার অপরাধ জগতের কিং ও জোড়া খুনসহ মামলার আসামী ফেচুক্রর হাতে প্রায় ১০ হাজার মানুষ জিম্মি দষায় জীবন যাপন করছে বলে অভিযোগ উঠেছে।
জানা যায়, উপজেলার ক্রাইম জোন হিসাবে খ্যাত জালিয়াপালং ইউনিয়নের মধ্যম মনখালী গ্রামের বশরত আলীর ছেলে এলাকার চিহ্নিত অস্ত্রধারী, মাদারবনিয়া এলাকার জোড়া খুন ও মানব পাচারসহ ডজন মামলার আসামী ফেচুক্রর ফের বেপরোয়া হয়ে চাঁদাবাজী, জমিদখলসহ এলাকার নিরহ লোকজনকে কারনে অকারনে অস্ত্রের মূখে জিম্মি করে শারীরিক ও মানষিক নির্যাতনের পাশাপাশি চাঁদা আদায় করে আসছে বলেও জানা গেছে। তার উক্ত অপকর্ম ও দখলবাজী, চাঁদাবাজী ও অত্যাচারের বিরুদ্ধে এলাকার কেউ প্রতিবাদ করিলে তার উপর নেমে আসে চরম অত্যচার ও নির্যাতন। তাই তার বিরুদ্ধে এলাকার কেউ মূখ খুলতে সাহস পাচ্ছে না বলে জানা গেছে। মনখালী এলাকার এক ভুক্তভোগী আমির হোসেন জানান, এলাকায় কোন প্রকার ছোট খাটো ঘটনা বা জমি সংক্রান্ত ঘটনা সংঘটিত হলে সেখানে ফেচুক্র টাকার বিনিময়ে একটি পক্ষ নিয়ে প্রতিপক্ষাকে হামলা ও ভয়ভীতি প্রদর্শন করে একজনের জমি অন্যজনকে দখল করে দেওয়াটাই তার নেশা এবং পেশা হিসাবে পরিনত হয়েছে। সে আরো বলেন, স্থানীয় সাবেক ইউপি সদস্য সোলতান মেম্বারের ইন্ধনে জোড়া খুন মামলার আসামী ফেচুক্র এলাকায় এ তান্ডব চালাচ্ছে। শুধু তাই নয়, সম্প্রতি এলাকার একটি ঘটনার তদন্তে আইনশৃংখলা বাহিনীর সামনে স্থানীয় মুছা মেম্বারকে হামলার চেষ্টা চালায় বলেও জানা যায়। স্থানীয় সচেতন মহলরা জানান, অতি শিঘ্রই ফেচুক্রকে গ্রেপ্তার পূর্বক কঠিন শাস্তির আওতায় নিয়ে আসা না হলে এলাকার আইনশৃংলা পরিস্থিতি চরম অবনতি হওয়ার আশংকা রয়েছে। তাই তাকে গ্রেপ্তারের আওতায় নিয়ে আসার জন্য জেলা পুলিশ সুপারের হস্তক্ষেপ কামনা করছে। মোহাম্মদ হোসেন প্রকাশ ফেচুক্রর সাথে যোগাযোগ করিলে সে তার অপকর্মের কথা অস্বীকার করেন। উখিয়া থানার ওসি মোঃ আবুল খায়ের বলেন মোহাম্মদ হোসেন ফেচুক্রকে ধরার জন্য পুলিশ কাজ করছে।

Share this post

scroll to top