উখিয়ায় মদ্যপায়ী দুর্বৃত্তের হাতে জিম্মি স্বামী পরিতাক্ত বেবী

pic-b-1.jpg

উখিয়া ক্রাইম নিউজ ডেস্ক::

পিতা মাতাহীন স্বামী পরিতাক্ত বেবী বড়ুয়া (২৮) কুতুপালং পিএফ পাড়ায় এককন্ড বন ভুমির জায়গায় একটি শিশু সন্তান নিয়ে বসবাস করে আসছিল দীর্ঘ দিন থেকে। খেয়ে না খেয়ে একমাত্র মাথা গুজার ঠাইখানি ধরে রাখার শত চেষ্টা করেও পারছেনা। শনিবার সন্ধায় মদ্যপায়ী দুর্বৃত্ত রাখাল নাথ ও প্রদ্বীপ বড়ুয়া তার বসত ভিঠায় হামলা চালিয়ে ব্যাপক ভাংচুর করেও ক্ষান্ত হয়নি। রাত ২টার দিকে ওই দুই লম্পট মদ পান করে তার বাড়ীতে ঢুকে ধারালো ছুরির ভয় দেখিয়ে তার সর্বনাশ করেছে। কথাগুলো বলতে কেদেঁ উঠলেন অসহায় বেবী বড়ুয়া । গতকাল রোববার সকালে তার বসত ভিঠায় গিয়ে দেখা যায় দুর্বৃত্তরা তার ঘেরা বেড়া ও দরজা জানালা ভাংচুর করা হয়েছে। প্রত্যক্ষদর্শী পাড়া প্রতিবেশীরা জানান, অবৈধ ভাবে চনাচুর ফেক্টুরী গড়ে তোলে রাখাল নাথ নামের এক ব্যবসায়ী পাশর্^বর্তী স্বজন হারা বেবী বড়–য়ার বসত ভিঠাখানা জবরদখল করার কু-মানষে একই গ্রামের প্রদ্বীপ বড়ুয়া নামের এক মদ্যপায়ী দুর্বৃত্তকে ভাড়াঠিয়া মাস্তান হিসাবে লেলিয়ে দিয়ে বেবী বড়ুয়াকে শারীরিক ও মানষিক ভাবে নির্যাতন করে আসছিল। গ্রামের একাধিক প্রত্যক্ষদর্শী গৃহবধু এঘটনার সত্যতা স্বীকার করে বলেন, মদ্যপায়ী প্রদ্বীপ বড়ুয়ার মাস্তানির কারনে এখানের হতদরিদ্র পরিবার গুলোকে অসহায়েরমত দিন যাপন করতে হচ্ছে। ঘটনাস্থল থেকে রাখাল নাথ ও প্রদ্বীপ বড়ুয়ার সাথে কথা বলার চেষ্টা করলে তারা মুঠোফোন কেটে দেন। এঘটনায় বেবী বড়ুয়া বাদী হয়ে গতকাল রবিবার উখিয়া থানায় একটি লিখিত অভিযোগ করেছেন বলে সাংবাদিকদের জানিয়েছেন।

Share this post

scroll to top