উখিয়ায় গাড়ী ভাংচুর, শ্লীলতাহানীর অভিযোগ

.jpg

উখিয়া ক্রাইম নিউজ ডেস্ক::

উখিয়ায় প্রতিপক্ষের তৈরি করা রোহিঙ্গাদের ব্যবহ্নত রিং স্লেব পরিবহনে নিয়োজিত ভাড়াটিয়া গাড়ী ভাংচুরসহ হামলায় বাধা দিতে গিয়ে গৃহবধুর শ্লীলতা হানি করা হয়েছে মর্মে কুতুপালং কচুবনিয়া গ্রামের আলা উদ্দিনের স্ত্রী সেলিনা (২৭) বাদী হয়ে ৬ জনকে আসামী করে উখিয়া থানায় একটি মামলা দায়ের করেছে। উক্ত মামলাকে ধামাচাপা দেওয়ার জন্য প্রতিপক্ষরা সাজেদা বেগম নামের এক মহিলাকে বাদী করে আদালতে একটি নারী নির্যাতন মামলা দায়ের করেছে। মামলা, পাল্টা মামলার ঘটনা নিয়ে এলাকায় চরম উত্তেজনা বিরাজ করছে। ১০/৯/২০১৮ ইং তারিখে ১৭ নং মামলার বাদী সেলিনা আকতার স্থানীয় সাংবাদিকদের জানান, প্রতিপক্ষ রোহিঙ্গা হত্যা মামলার আসামী জাগির হোসেন পরিবারের সাথে তাদের মধ্যে বিরোধ চলে আসছিল দীর্ঘ দিন থেকে।
এামলার সূত্রে জানা যায়, সম্প্রতি সেলিনার বাড়ীর পাশে প্রতিপক্ষের আত্নীয়স্বজনের খালি জমিতে শরনার্থী শিবিরে সরবরাহ দেওয়ার জন্য রিং স্লেব তৈরি করতে ভাড়া দেওয়া হয়। উক্ত রিং স্লেব সরবরাহ দেওয়ার জন্য সেলিনার মালিকানাধীন দুটি গাড়ী নিয়মিত পরিবহন কাজে নিয়োজিত রয়েছে। এমতাবস্থায় প্রতিপক্ষরা পূর্ব পরিকল্পিত ভাবে প্রতিদিনেরমত গত ৮ সেপ্টেম্বর সন্ধায় রিং স্লেব পরিবহন করতে আসা আমার গাড়ী দুটিতে হামলা চালিয়ে ব্যাপক ভাংচুর করে প্রায় ৬৫ হাজার টাকা মূল্যের গাড়ীর যন্ত্রপাতি খোলে নিয়ে যাওয়ার চেষ্টা করে। এসময় গাড়ী রক্ষার জন্য এগিয়ে আসলে প্রতিপক্ষ মিজান (৩০), শফিক (১৮), কুলসুমা (২২),তৈয়বা (২৫), মোঃ সোলতান (৪০) ও জাগির হোসেন সহ ৭/৮ জন দুর্বৃত্ত আমার উপর ঝাপিয়ে পড়ে আমাকে বেধড়ক মারধর ও বিব্রস্ত্র করে শ্লীলতা হানী করে। এবং ভাড়াবাড়ী করলে খুন করে লাশ গুম করে ফেলবে মর্মে হুমকি প্রদর্শন করে। এঘটনাকে ধামাচাপা দেওয়ার অপচেষ্টা চালিয়ে প্রতিপক্ষ মোঃ ইকবালের স্ত্রী সাজেদা ইয়াছমিন বাদী হয়ে ৬ জনকে আসামী করে কক্সবাজার সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিষ্ট্রেট আদালতে একটি মামলা দায়ের করেন। যার মামলা নং ৩০৬ তারিখঃ ১৩/৯/২০১৮ইং। সেলিনা আকতার উক্ত মামলাটি তদন্ত করে দোষী ব্যাক্তিদের বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা গ্রহনের জন্য পুলিশ সুপারের হস্তক্ষেপ কামনা করেন।

Share this post

scroll to top