উখিয়ায় মেম্বার কর্তৃক ত্রানের তালিকা নিয়ে অন্তসত্বা মহিলাকে মারধর – শ্লীতাহানীর চেষ্টা

pic-2.jpg

রফিক উদ্দিন বাবুল উখিয়া ::

উখিয়ার পালংখালী ইউনিয়নের থাইংখালী পুটিবনিয়া এলাকায় এনজিও সংস্থা কর্তৃক প্রদত্ত ত্রানের তালিকা নিয়ে স্বজনপ্রীতির অভিযোগ উঠেছে। উক্ত তালিকায় নাম অর্ন্তভোক্ত করতে বলায় ইউপি সদস্য কর্তৃক এক ৫ মাসের অন্তসত্বা মহিলা মারধরের শিকার হয়েছে। এসময় আহতের শোর চিৎকারে পাশর্^বর্তী লোকজন হামলাকারীদের কবল থেকে তাকে উদ্ধার করে উখিয়া হাসপাতালে ভর্তি করেন। কর্তব্যরত চিকিৎসক আহত মহিলা শংকামুক্ত নয় বলে জানান। শুক্রবার দুপুর ২টায় থাইংখালী পুটিবনিয়া এলাকায় জাহেদ আলমের দোকানে এঘটনাটি ঘটে। তার চোখের সামনে তার স্ত্রী তাহেরা বেগমকে মারধর ও লাঞ্চিত করার ঘটনায় থাইংখালী হাকিম পাড়া গ্রামের কাছিম আলীর ছেলে ইউপি সদস্য নুরুল আমিন ও দক্ষিন থাইংখালী পুটিবনিয়া গ্রামের হাফেজ আব্দুল্লার ছেলে সাহাব উদ্দিনকে আসামী করে শনিবার সকালে জাহেদ আলম উখিয়া থানায় একটি এজাহার দায়ের করেছেন।
সূত্রে জানা যায়, এনজিও সংস্থার দেয়া বিভিন্ন ত্রান সামগ্রীর তালিকা করার জন্য ইউপি সদস্য সদলবলে তার দোকানে প্রবেশ করে। নিকট আত্নীয় স্বজন ও দলীয় লোকজনদের নাম তালিকায় অর্ন্তভুক্ত করছিল। এসময় জাহেদ আলমের স্ত্রী তাহেরা বেগম (২৮) তার নামটি লিখতে বলেল ইউপি সদস্য ও অন্যান্যরা ক্ষিপ্ত হয়ে অন্তসত্বা তাহেরা বেগমকে বেদড়ক মারধর পূর্বক গুরুতর জখম করে মাটিতে ফেলে দিয়ে তার অন্তসত্বা গর্ভপাত করে ক্ষান্ত না হয়ে ফের তাকে অকথ্য ভাষায় গালি গালাজ করে জন সম্মূখে লাঞ্চিত করেছে বলে তাহেরার স্বামী জাহেদ আলম জানান। জাহেদ আলম আরো জানান, উক্ত ঘটনায় থানা বা আদালতে কোন প্রকার মামলা করিলে তাকে ও তার পরিবারকে হত্যা করে লাশ গুম করা হবে মর্মে হুমকি ধমকি প্রদর্শন করেন। ইউপি সদস্য নুরুল আমিন এঘটনার অস্বীকার করে বলেন, স্থানীয় রাজনীতি করতে গেলে অনেক সমস্যার সৃষ্টি হয়। তবে এ ধরনের কোন ঘটনা ঘটেনি। উখিয়া থানার অফিসার ইনচার্জ মোঃ আবুল খায়ের তদন্তপূর্বক জড়িতদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়া হবে বলে তিনি জানান।

Share this post

scroll to top