সংবাদ শিরোনাম
উখিয়ার জামতলী শফি উল্লাহ কাটা ক্যাম্প বাজারের খাস কালেকশনের নামে…থাইংখালীতে সরওয়ারের নেতৃত্বে সরকারি বনভুমিতে নির্মিত হচ্ছে স্থাপনামানবপাচারকারী জালাল জুতার মালা ও কোদাল দিয়ে মাথার চুল উপড়িয়ে…থাইংখালীতে সরওয়ারের নেতৃত্বে সরকারি বনভুমিতে নির্মিত হচ্ছে স্থাপনাকক্সবাজারে গণবদলির পর নতুন ওসি-এসআইসহ ৩৭ জনকে পোস্টিংকক্সবাজার থেকে শীর্ষ কর্মকর্তাসহ পুলিশের ১৩৪৭ সদস্য বদলিরোহিঙ্গাদের বাংলাদেশী জাতীয় পত্র বানিয়ে দিচ্ছে একটি সিন্ডিকেট, জড়িত শিক্ষক…নাফ নদীতে গোলাগুলি করে ৫০ হাজার ইয়াবা উদ্ধারউখিয়ায় ইয়াবাসহ দুই রোহিঙ্গা আটকউখিয়ার চাঞ্চল্যকর ফোর মার্ডার ঘটনার এক বছর

রূপপতিতে প্রবাসীর স্ত্রীকে ধর্ষনের চেষ্টায় আটক ১

MM-1.jpg

শাকুর মাহমুদ চৌধুরী উখিয়া ::

উখিয়ার উপক’লীয় এলাকা রূপপতি গ্রামে পিতার বাড়ীতে আশ্রয় নেয়া প্রবাসীর স্ত্রী নুর আয়েশা বেগম (৩০) কে গভীর রাতে জোরপূর্বক ধর্ষনের চেষ্টাকালে গ্রামবাসী হাতে নাতে আটক করেছে আয়াছ উদ্দিন আব্বু (২৮) নামের এক লম্পটকে। সে পাঠোয়ারটেক গ্রামের নুর আহম্মদের ছেলে। ঘটনাটি ঘটেছে বৃহস্পতিবার গভীর রাতে। গ্রামবাসী তাকে ইনানী পুলিশ ফাঁড়িতে হস্তান্তর করেছে।
থানায় দায়েরকৃত অভিযোগে জানা যায়, রূপপতি গ্রামের মৃত মোঃ হোছনের মেয়ে ৩ সন্তানের জননী নুর আয়েশা বেগমের স্বামী বদি আলম ৫ বছর যাবৎ মালেশিয়ায় অবস্থান করছে। এ সুযোগে নুর আয়েশাকে একাকী পেয়ে প্রতিনিয়ত অনৈতিক প্রস্তাব দিয়ে আসছিল আয়াছ উদ্দিন আব্বু (২৮)। তার অনৈতিক প্রস্তাবে রাজি না হওয়ায় নুর আয়েশাকে শারীরিক ও মানষিক ভাবে নির্যাতন করতে থাকে। তার অসহনীয় অত্যাচারে অতিষ্ট হয়ে নুর আয়েশা স্বামীর বাড়ী ত্যাগ করে ছেলে সন্তান নিয়ে ১৫ দিন আগে রূপপতি বাপের বাড়ীতে চলে আসে। মামলার বাদী নুর আয়েশার ভাই আবুল শামা জানান, বৃহস্পতিবার গভীর রাতে লম্পট আব্বুইয়া কৌশলে নুর আয়েশার শয়ন কক্ষে ঢুকে তাকে বিবস্ত্র করে ধর্ষনের চেষ্টা চালায়। এসময় আয়েশা চিৎকার দিয়ে উঠলে পরিবার ও আশে পাশের লোকজন এসে আয়েশাকে উদ্ধার করে লম্পট আব্বুইয়াকে ইনানী পুলিশের হাতে হস্তান্তর করেন। নুর আয়েশা পরিবারের অভিযোগ বিবাদী পক্ষ প্রভাবশালী বিধায় তারা মোঠা অংকের টাকা নিয়ে আব্বুইয়াকে ছাড়িয়ে নেওয়ার তদবির করছে। নুর আয়েশা জানান, এঘটনার জন্য প্রবাসী স্বামী তাকে ত্যাগ করতে পারে। ইনানী পুলিশ ফাঁড়ির ইনচার্জ এস আই আনিসুর রহমান জানান, মেয়েটি এখন অসহায়। তা ছাড়া ধৃত লম্পটের সাথে বিয়ে হোক আর না হোক তার প্রবাসী স্বামী তাকে রাখবেনা। তাই মেয়েটিকে ওই লম্পটের সাথে বিয়ে দিতে হবে।

Share this post

scroll to top