মনখালীতে সামাজিক বনায়ন নিয়ে বিট কর্মকর্তার বানিজ্য

on-1.jpg

রফিক উদ্দিন বাবুল উখিয়া ::

উখিয়ার উপক’লীয় এলাকার হোয়াইক্যং বন রেঞ্জের আওতাধীন মনখালী বন বিটে সামাজিক বনায়ন প্রকল্প এখন উপকার ভোগীদের হাত ছাড়া হয়ে যাচ্ছে। বেদখল হয়ে যাচ্ছে বন ভুমি। ফলে প্রকৃতির অভায়ারণ্যে হিসাবে খ্যাত উপক’লের সামাজিক বনায়ন প্রকল্প অস্থিত্বহীন হয়ে পড়ছে বলে অভিযোগ উঠেছে। ২০০৩-৪ সালের বাস্তবায়নাধীন ২৫ হেক্টর সামাজিক বনায়নের অংশিদারিত্বের ভিত্তিতে সৃজিত গাছ রক্ষনাবেক্ষন, পরিচর্যা করার জন্য ১৫ জন ভুমিহীন উপকার ভোগী নিয়োগ দেওয়া হয়। উপকার ভোগী মনখালী গ্রামের মৃত রশিদ আহম্মদের ছেলে মোঃ শফিউল্লাহ অভিযোগ করে জানান, রোহিঙ্গা আসার কারনে বন জঙ্গল ও পরিতাক্ত বন ভুমির দাম বেড়েছে আকাশ ছোয়া। এছাড়াও শাহপরীরদ্বীপ ও মহেশখালী থেকে শতশত পরিবার মনখালীর বনে আশ্রয় নেওয়ার সুযোগে বিট কর্মকর্তা মঞ্জুরুল হক চৌধুরী ও স্থানীয় ইউপি সদস্য অনিয়মের আশ্রয় নিয়ে সামাজিক বনায়নের নীতিমালা বহিভর্’ত কর্মকান্ড চালিয়ে যাচ্ছে। সে জানান, তার অনুক’লে বরাদ্ধ দেওয়া সামাজিক বনায়নের অংশ টুকু মোটা অংকের টাকায় বিক্রি করে দিয়ে তালিকা থেকে তার নামটি বাদ দেওয়া হয়েছে। এভাবে সামাজিক বনায়নের জায়গা বিক্রির ফলে উক্ত দীর্ঘ মেয়াদী প্রকল্পটি এখন অস্থিত্বহীন হয়ে পড়েছে। এঘটনায় জড়িত বিট কর্মকর্তা মঞ্জুরুল হকের বিরুদ্ধে বিধিমোতাবেক ব্যবস্থা গ্রহনের জন্য ওই সুফল ভোগী বিভাগীয় বন কর্মকর্তার হস্তক্ষেপ কামনা করেছেন। এব্যাপারে জানতে চাওয়া হলে মনখালী বন বিট কর্মকর্তা মোঃ মঞ্জুরুল হক চৌধুরীর সাথে একাধিক বার যোগাযোগ করার চেষ্টা করেও তাকে পাওয়া যায়নি। ইনানী ও হোয়াইক্যং রেঞ্জ কর্মকর্তা ইব্রাহিম হোসেন জানান, তার কাছে এধরনের কোন অভিযোগ আসে নাই।

Share this post

scroll to top