উত্তর পুকুরিয়ায় ভুলুর নেতৃত্বে চলছে পাহাড় কাটার ধুম

Ukhiya-Pic-06-11-2018.jpg

কায়সার হামিদ মানিক উখিয়া ::

কক্সবাজারের উখিয়ার বিভিন্ন এলাকায় পাহাড় কেটে স্থাপনা নির্মাণ করছে ইয়াবা ব্যবসায়ী ও ভুমিদস্যুরা। বন বিভাগের এ নিয়ে কোন মাথা ব্যাথা নেই। তারা কারো নির্দেশ মানেনা। নির্বিঘেœ বন বিভাগের পাহাড় কেটে স্থাপনা নির্মাণ করলেও তাদের রয়েছে বিশাল সিন্ডিকেট।
জানা গেছে, রাজাপালং ইউনিয়নের উত্তর পুকুরিয়ার পশ্চিম পাড়া গ্রামের নুরুল আলমের ছেলে নারী নির্যাতন মামলার আসামী এলাকার চিহ্নিত ইয়াবা ব্যবসায়ী ও সন্ত্রাসী আবদুস সত্তার প্রঃ ভুলু প্রতিদিন গাড়ি দিয়ে পাহাড়ের মাটি কেটে নিয়ে যাচ্ছে। স্থাপনা করার জন্য সমতল করা হচ্ছে সরকারি বন ভূমির জায়গা। স্থানীয়রা এ ব্যাপারে কোন মুখ খুলতেও সাহস পাচ্ছে না। এ ভাবে উখিয়ার বিভিন্ন জায়গায় সরকারি বন বিভাগের পাহাড় কেটে স্থাপনা নির্মাণ করলেও বন বিভাগের ঘুম ভাঙ্গছেনা। কুতুপালং এলাকায় রোহিঙ্গারা শত শত একর বন ভূমির জায়গা দখল করে পাহাড় কেটে ঝুঁপড়ি ঘর নির্মাণ করলেও তাদের বাঁধা দেওয়ার কেউ নেই। কুতুপালং এলাকার মোঃ আলম নামের এক রোহিঙ্গা নাগরিক সরকারি বন ভূমির জায়গায় ২০টি স্থাপনা নির্মাণ করে অন্যদেরকে ভাড়া দিয়েছে বলে অভিযোগ উঠেছে। এ ভাবে চলছে উখিয়ার বন বিভাগের সরকারি জমি দখল। এ ব্যাপারে উখিয়া সদর রেঞ্জ কর্মকর্তা কাজী তরিকুর রহমান জানান, উত্তর পুকুরিয়া পশ্চিম পাড়া গ্রামে যে পাহাড় কাটছে ঘটনাস্থল তদন্ত করে তার বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়া হবে। তবে ঐ গ্রামের আবদুস সত্তার প্রঃ ভুলু বলছে তার পৈত্রিক জমিতে পাহাড় কেটে ঘর বাঁধার জন্য জায়গা সমতল করা হচ্ছে।

Share this post

scroll to top