সংবাদ শিরোনাম

উখিয়ায় স্টাম্পমূলে বিক্রিত জমির উপর বন বিভাগের সাইনবোর্ড

44.jpg

রফিক উদ্দিন বাবুল উখিয়া ::

স্থানীয় আঞ্চলিক ও জাতীয় পত্রিকায় সংবাদ প্রকাশের জের ধরে সম্প্রতি স্টাম্পমূলে বিক্রিত জমির উপর সাইনবোর্ড টাঙ্গিয়েছে। লেখা হয়েছে এই সম্পত্তি উখিয়া রেঞ্জাধীন হলদিয়াপালং বন বিভাগের সরকারি সম্পত্তি। ক্রয় বিক্রয় করা দন্ডনীয় অপরাধ। আদেশক্রমে কক্সবাজার দক্ষিন বন বিভাগীয় কর্মকর্তা।

উল্লেখ্য যে, সম্প্রতি উখিয়ার বন ভুমির জায়গা জমি স্টাম্পমূলে বিক্রি হওয়ার অভিযোগ উঠেছে। শুক্রবার উখিয়ার বেশ কয়েকটি কম্পিউটার অপরাটারের সাথে কথা বলে জানতে চাওয়া হলে তারা বলেন, প্রতিনিয়ত স্টাম্পমূলে বন ভুমির জায়গা হস্তান্তর করা হচ্ছে। কম্পিউটার অপরাটার ইমরান জানান, বন ভুমির দখল হস্তান্তরের ব্যাপারে বনবিট সংশ্লিষ্টরা জড়িত থাকার কারনে স্টাম্পমূলে বন ভুমির জায়গার লেনদেনের সুযোগ পাচ্ছে। স্টাম্পমূলে বন ভুমির ৪শতক জায়গা ১ লক্ষ টাকামূল্যে ক্রয়ের ব্যাপারে জানতে চাওয়া হলে খেওয়াছুড়ি সোনাঘোনা গ্রামের কবির আহম্মদের ছেলে মোঃ আসহাব উদ্দিন জানান, বন ভুমির জায়গা হস্তান্তরের ব্যাপারে স্টাম্পের কোন ভুমিকা নেই তা জানা স্বর্তেও ভবিষ্যতে মতবিরোধের আশংকা করে স্টাম্পমূলে বন ভুমির জায়গা খরিদ করা হয়েছে। উক্ত বন ভুমির জায়গার মালিক দাবী করে একই গ্রামের মৃত বুজুরুজ মিয়ার ছেলে কবির আহম্মদ জানান, সে স্থানীয় বন বিট কর্মকর্তাকে ম্যানেজ করে তার দখলীয় বন ভুমির ৪শতক জায়গা হস্তার করেছে। এব্যাপারে হলদিয়ার বন বিট কর্মকর্তা মহি উদ্দিনের কাছে স্টাম্পমূলে বন ভুমির দখল বিক্রি সম্পর্কে জানতে চাওয়া হলে তিনি এব্যাপারে কিছুই না জানার ভান করে বলেন, সোনা ঘোনা এলাকায় একটি পিএফ জায়গা বেচা কেনার বিষয়টি তিনি শুনেছেন। স্টাম্পমূলে কি ভাবে বন ভুমি বিক্রি হয় এমন প্রশ্নের জবাবে, রেঞ্জ কর্মকর্তা কাজী তারিকুর রহমান জানান, স্টাম্পমূলে বন ভুমির জমি ক্রেতা বিক্রেতা উভয়কে ভ্রাম্যমান আদালতে সোপর্দ করার প্রস্তুতি নেওয়া হচ্ছে। শনিবার সকালে ঘটনাস্থল সোনাঘোনা এলাকায় গিয়ে দেখা যায়, স্টাম্পমূলে বিক্রিত জমির উপর বন কর্মীরা একটি সাইনবোর্ড লাগিয়ে দিয়েছে। এব্যাপারে জানতে চাওয়া হলে রেঞ্জ কর্মকর্তা কাজী তারিকুর রহমান জানান, বন ভুমির জায়গা ক্রয় বিক্রয়ে জড়িত দুই জনের বিরুদ্ধে বন মামলা ও থানায় পৃথক দুটি মামলা করা হবে।

Share this post

scroll to top