রোহিঙ্গাদের জন্য আরো উন্নত পরিবেশ সৃষ্টির প্রয়োজন রাখাইনে

pic-1-2.jpg

কায়সার হামিদ মানিক উখিয়া ::

উখিয়ার কুতুপালং রোহিঙ্গা ক্যাম্প সংলগ্ন ঘুমধুম ট্রানজিট ক্যাম্প পরিদর্শন শেষে যুক্তরাষ্ট্রের আফ্রিকা ও এশিয়ার শরনার্থী প্রত্যাবাসন বিষয়ক উপসহকারী মন্ত্রী রিসার্ড অলব্রাইট সাংবাদিকদের বলেছেন, রোহিঙ্গা প্রত্যাবাসনে রাখাইনে আরো উন্নত পরিবেশ সৃষ্টির প্রয়োজন রয়েছে।
রোববার দুপুরে রোহিঙ্গা প্রত্যাবাসনের জন্য প্রস্তুতি নেয়া সার্বিক কার্যক্রম পরিদর্শন শেষে এসব কথা বলেন রিসার্ড। তিনি বলেন, স্বেচ্ছায় প্রত্যাবাসনে ইচ্ছুক রোহিঙ্গাদের নিরাপদ, মর্যদা সম্পন্ন প্রত্যাবাসন হওয়া উচিত। যেহেতু রোহিঙ্গারা বলপূর্বকবাস্তচ্যুত। তারা নির্যাতনের শিকার হয়ে এদেশে আশ্রয় নিয়েছে। রোহিঙ্গারা রাখাইনে ফিরে যাওয়ার পর তারা যেন স্বস্তিতে বসবাস করতে পারে সেজন্য জাতিসংঘসহ আর্ন্তজাতিক মানবাধিকার সংস্থা ও বিভিন্ন দাতা সংস্থাকে রাখাইনে অবাধে কাজ করার সুযোগ নিশ্চিত করা দরকার। পরিদর্শনকালে ইউএসডি বাংলাদেশ মিশনের প্রধান ডেরিক ব্রাউন বলেন, রোহিঙ্গা ও স্থানীয় ক্ষতিগ্রস্থ জনগনের জীবনমান উন্নয়ন ও শিক্ষাখাতে সহায়তা করতে কাজ করছে ইউএসএডি। রোহিঙ্গারা এখানে যতদিন থাকবেন ততদিন ইউএসএডির সহায়তা অব্যাহত থাকার আশ^স্ত করেন। পরিদর্শনকালে প্রতিনিধি দলের সাথে ছিলেন, ক্যাম্পে কর্মরত বিভিন্ন এনজিও ও দাতা সংস্থার কর্মকর্তারা। এর আগে প্রতিনিধি দল নাইক্ষ্যংছুড়ির ঘুমধুম ইউনিয়নের তুমব্রু সীমান্তে আশ্রীত কোনার পাড়া রোহিঙ্গা ক্যাম্প পরিদর্শন করেন। এসময় প্রতিনিধি দল রোহিঙ্গাদের সাথে কথা বলে তাদের জীবনমান, অভাব অভিযোগ সম্পর্কে জানতে চান। কোনার পাড়া রোহিঙ্গা ক্যাম্পের মাঝি দিল মোহাম্মদ জানান, রোহিঙ্গাদের সার্বিক নিরাপত্তা নিশ্চিত করে রাখাইনে প্রত্যাবাসনের আশ^স্ত করেছেন প্রতিনিধি দল।

Share this post

scroll to top