সংবাদ শিরোনাম
উখিয়ার ক্যাম্প থেকে ভাসানচরের উদ্দেশে রওনা হয়েছে রোহিঙ্গাদের বিশাল বহররামু সেনানিবাসে ৪ ইউনিটের পতাকা উত্তোলন করলেন সেনা প্রধানউখিয়ায় একাধিক মামলার আসামি রফিকুল হুদা আটক২ লাখ ৮০ হাজার ইয়াবাসহ মিয়ানমারের ৭ নাগরিক আটককক্সবাজার সড়কে বাস ডাকাতির ঘটনায় গ্রেপ্তার ৬নাইজেরিয়ায় ১১০ কৃষকের গলা কেটে বর্বর হত্যাকাণ্ডউখিয়া প্রেসক্লাব নির্বাচনের প্রার্থীদের তালিকা চুড়ান্ত, বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় নির্বাচিত ১উখিয়ায় বন বিভাগের অভিযানে অজগর সাপ উদ্ধারউখিয়ায় বন বিভাগের অভিযানে ৪টি অবৈধ ড্রেজার মেশিন ও ১৪টি…রোহিঙ্গা সুরক্ষায় নির্দেশনা অনুযায়ী আদালতে মিয়ানমারের দ্বিতীয় প্রতিবেদন

উখিয়ার নির্বাচনী পরিবেশে আমূল পরিবর্তন

104938627__104880153_gettyimages-84127077.jpg

কায়সার হামিদ মানিক উখিয়া ::

একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে প্রচার প্রচারণা নিয়ে এতদিন নৌকা ও ধানের শীষ সমর্থক নেতাকর্মীদের মধ্যে বিক্ষিপ্ত সংঘর্ষ, হামলা-মামলা প্রচারণার গাড়ী ও মাইক ভাংচুরের ঘটনা নিয়ে দু’পক্ষের মধ্যে চলে আসছিল মারমুখী পরিবেশ। যা নিয়ে সাধারণ ভোটারদের মধ্যে ছিল শংকা। সম্প্রতি সেনাবাহিনী ও বিজিবি সদস্যরা সার্বক্ষণিক নির্বাচনী মাঠে অবস্থান করায় প্রার্থীদের কর্মী সমর্থক ও ভোটারদের মাঝে ফিরে এসেছে স্বস্তি। আমূল পরিবর্তন ঘটেছে নির্বাচনী পরিবেশে, এমনটাই মনে করছেন এলাকার বিভিন্ন শ্রেণি পেশার মানুষ।
নির্বাচনী মাঠে সেনা সদস্যরা কি ধরনের দায়িত্ব পালন করবেন এমন প্রশ্নের জবাবে উপজেলা নির্বাহী অফিসার ও সহকারি রিটার্নিং অফিসার মোঃ নিকারুজ্জামান চৌধুরী সাংবাদিকদের জানান, তারা মূলত বেসামরিক কর্তৃপক্ষের সহায়তা সংক্রান্ত নির্দেশনা অনুযায়ী কাজ করবেন। প্রয়োজন অনুযায়ী রিটার্নিং কর্মকর্তার সাথে সমন্বয়ের মাধ্যমে টহল ও অন্যান্য অভিযাত্রীক কার্যক্রম পরিচালনা করবেন। তিনি বলেন, ভোট কেন্দ্রে আইন শৃঙ্খলা রক্ষার জন্য অন্যান্য আইন শৃঙ্খলা বাহিনীকে সহায়তা প্রদান করবেন। রিটার্নিং কর্মকর্তা ও প্রিসাইডিং কর্মকর্তা চাহিদার পরিপ্রেক্ষিতে তারা ভোট কেন্দ্রের ভিতরে ভোট গণনাকালে শান্তি শৃঙ্খলা রক্ষায় দায়িত্ব পালন করার কথা রয়েছে।
সেনাবাহিনী ও বিজিবি সদস্যরা নির্বাচনী মাঠে অবস্থান করায় বিরাজমান পরিস্থিতি জানতে বিভিন্ন শ্রেণি পেশার মানুষের সাথে কথা হয়। একাধিক ব্যক্তি জানালেন, নির্বাচন অনুষ্ঠানের দিন যতই ঘনিয়ে আসছিল ততই সাধারণ ভোটারদের মাঝে উদ্বেগ উৎকণ্ঠা বাড়ছিল। অনেকেই বলেছিলেন, ঝুঁকি নিয়ে ভোট কেন্দ্রে যাবেন না। সেনাবাহিনী মাঠে নামার বিষয়টিকে স্বাগত জানিয়ে উখিয়া বাজারের বয়োবৃদ্ধ পরিমল সেন জানান, সংঘাত, মারামারি, হানাহানির শংকা কেটে গেছে। ভোটাররা এবার নিরাপদে ভোট দিতে পারবেন বলে তিনি আশা প্রকাশ করেন।
উপজেলা আ’লীগের সভাপতি ও উখিয়া বঙ্গমাতা ফজিলাতুন্নেছা মুজিব মহিলা কলেজের অধ্যক্ষ হামিদুল হক চৌধুরী জানান, যেকোন নির্বাচনে ছোটখাট বিভিন্ন অপ্রীতিকর ঘটনা ঘটে থাকে। তবে তা মুখ্য বিষয় নয়। আসল কথা হচ্ছে নির্বাচন শান্তিপূর্ণ পরিবেশে সম্পন্ন হওয়া। নির্বাচনী মাঠে সেনাবাহিনী ও বিজিবি’র সার্বক্ষণিক উপস্থিতিকে কেন্দ্র করে সাধারণ ভোটারের উপস্থিতি লক্ষ্যণীয় ও নিঃসন্দেহে যার ভোট সে প্রদান করতে পারবেন বলে তিনি আশা প্রকাশ করেন। অধ্যাপক তহিদুল আলম তহিদ জানান, সেনাবাহিনী মাঠে নামার পর থেকে নির্বাচনী পরিবেশের উন্নতি হয়েছে। এর ধারাবাহিকতা অব্যাহত থাকলে একটি শান্তিপূর্ণ নির্বাচন অনুষ্ঠিত হওয়ার আশা করা হচ্ছে

Share this post

scroll to top