উখিয়ার শীর্ষ ইয়াবাকারবারী মাহমুদুল হক বহাল তবিয়তে – র‌্যাবের হস্তক্ষেপ কামনা

n8.jpg

উখিয়া ক্রাইম নিউজ ডেস্ক::

উখিয়া টেকনাফ সীমান্তের ইয়াবা ব্যবসায়ীদের জনক হিসাবে পরিচিত মাহমুদুল হক চলমান মাদক বিরোধী অভিযানকে বৃদ্ধাঙ্গুলি ও ক্ষমতার প্রভাব বিস্তার করে সিন্ডিকেটের মাধ্যমে দেশের বিভিন্ন অঞ্চলে নির্বিঘ্নে লাখ লাখ পিস ইয়াবা পাচার করে রাতারাতি আঙ্গুল ফুলে কলা গাছে পরিনত হয়ে কোটিপতির খাতায় নাম লিখিয়েছেন বলে অভিযোগ উঠেছে।
দোছড়ির নুরু কোম্পানি জানান, দোছড়ি গ্রামের আলী আহম্মদের ছেলে মাহমুদুল হক প্রকাশ ইয়াবা মাদুলক পাশর্^বর্তী মিয়ানমারের ইয়াবা আরদদারদের সাথে গভীর সখ্যতা গড়ে তোলে দীর্ঘ দিন ধরে রহমতেরবিল, ধামনখালী ও ডেইলপাড়া সীমান্ত এলাকা দিয়ে হাড়িহাড়ি ইয়াবা এদেশে নিয়ে এসে সিন্ডিকেটের মাধ্যমে দেশের বিভিন্ন অঞ্চলে পাচার করে আসছে। তিনি আরো জানান, সে ইয়াবা পাচারের কালো টাকার পাহাড় দিয়ে উখিয়া আদালত ভবন সংলগ্ন ব্র্যাক অফিসের পেছনে কোটি টাকা মূল্যের জমি ক্রয় করে বাড়ী নির্মান করার পাশাপাশি নামে বেনামে একাধিক গাড়ী, উখিয়া মসজিদ মার্কেটস্থ বিছমিল্লাহ টেলিকম সেন্টারসহ অঢল সম্পদের মালিক বনে গেছে।
তার আপন বড় ভাই নুরুল হক জানান, আমি বিদেশে থাকা অবস্থায় আমার স্ত্রীর সাথে পরকিয়া সম্পর্ক গড়ে তোলার পাশাপাশি আমার ছেলে মেয়েদেরকে স্কুলে ভর্তি করে দেওয়ার প্রলোভন দেখিয়ে দোছড়ি আমার নিজ বাড়ী থেকে রাজাপালং ইউনিয়ন পরিষদ সংলগ্ন রহমত উল্লাহ হুজুরের ভাড়া বাসায় আমার স্ত্রী, সন্তানদের নিয়ে এসে অনৈতিক কর্মকান্ডে লিপ্ত হয়ে বর্তমানে আমার দুই সন্তান ও স্ত্রীকে নিয়ে উধাও হয়ে কক্সবাজারস্থ আলিশান ভাড়া বাসায় রেখেছে। তিনি আরো জানান, আমি আমার ছেলে মেয়ে ও স্ত্রীকে ফেরত চাইলে ছোট ভাই মাহমুদুল হক আমাকে প্রান নাশের হুমকি ধমকি দিয়ে থাকে। তাই বর্তমানে আত্নহত্যা ছাড়া আমার আর কোন উপায় নেই।
স্থানীয় সচেতন মহলরা জানান, মাহমুদুল হককে গ্রেপ্তার পূর্বক ক্রসফায়ারের আওতায় নিয়ে এসে এলাকার শান্তি শৃংখলা ফিরিয়ে আনার জন্য র‌্যাব ৭ কক্সবাজারের হস্তক্ষেপ কামনা করছি। অন্যতায় মাহমুদুল হকের মাদকের ভয়াল থাবা থেকে এলাকার উঠতি বয়সী ছাত্র ও যুবসমাজকে কখনো রক্ষা করা সম্ভব হবেনা। এব্যাপারে উখিয়া থানার ওসি মোঃ আবুল খায়ের, ইয়াবা ব্যবসার সাথে জড়িত গডফাদারদেরকে গ্রেপ্তারের আওতায় নিয়ে আসা হবে তিনি জানান।

Share this post

scroll to top