সংবাদ শিরোনাম
উখিয়ার জামতলী শফি উল্লাহ কাটা ক্যাম্প বাজারের খাস কালেকশনের নামে…থাইংখালীতে সরওয়ারের নেতৃত্বে সরকারি বনভুমিতে নির্মিত হচ্ছে স্থাপনামানবপাচারকারী জালাল জুতার মালা ও কোদাল দিয়ে মাথার চুল উপড়িয়ে…থাইংখালীতে সরওয়ারের নেতৃত্বে সরকারি বনভুমিতে নির্মিত হচ্ছে স্থাপনাকক্সবাজারে গণবদলির পর নতুন ওসি-এসআইসহ ৩৭ জনকে পোস্টিংকক্সবাজার থেকে শীর্ষ কর্মকর্তাসহ পুলিশের ১৩৪৭ সদস্য বদলিরোহিঙ্গাদের বাংলাদেশী জাতীয় পত্র বানিয়ে দিচ্ছে একটি সিন্ডিকেট, জড়িত শিক্ষক…নাফ নদীতে গোলাগুলি করে ৫০ হাজার ইয়াবা উদ্ধারউখিয়ায় ইয়াবাসহ দুই রোহিঙ্গা আটকউখিয়ার চাঞ্চল্যকর ফোর মার্ডার ঘটনার এক বছর

মাদক মামলা থেকে অব্যাহত পাওয়ার জন্য কোটি টাকার মিশন নিয়ে মাঠে ফজল কাদের

nn.jpg

শাকুর মাহমুদ চৌধুরী উখিয়া ::

উখিয়া টেকনাফ সীমান্তের ইয়াবা ব্যবসায়ীদের জনক হিসাবে পরিচিত যুবলীগ নেতা নামধারী ফজল কাদের চলমান মাদক বিরোধী অভিযানকে বৃদ্ধাঙ্গুলি ও ক্ষমতার প্রভাব বিস্তার করে সিন্ডিকেটের মাধ্যমে দেশের বিভিন্ন অঞ্চলে নির্বিঘ্নে লাখ লাখ পিস ইয়াবা পাচার করে রাতারাতি আঙ্গুল ফুলে কলা গাছে পরিনত হয়ে কোটিপতির খাতায় নাম লিখিয়ে নামে বেনামে গড়ে তোলেছেন অঢল সম্পদ। কিন্তু দেখার কেউ নেই।
সরজমিন সোনার পাড়া এলাকা ঘুরে লোকজনের সাথে কথা বলে জানা যায়, জালিয়াপালং ইউনিয়নের ডেইল পাড়া গ্রামের মৃত আজিজুল ইসলামের ছেলে ফজল কাদের ও তার ঘনিষ্ট বন্ধু একই এলাকার জাগির হোসেন মাষ্টারের ছেলে লুৎফুর রহমান প্রকাশ লুইত্যাসহ স্বরাষ্ট্রমন্ত্রনালয়ের তালিকাভুক্ত শীর্ষ ইয়াবাডন টেকনাফ মৌলভী পাড়া গ্রামের ফরিদের সাথে গভীর সম্পর্ক গড়ে তোলার পাশাপাশি আকাশ, স্থল ও নৌপথে নিরাপদে ইয়াবার চালান পৌছে দিয়ে আজ শূণ্যে থেকে কোটিপতি। শুধু তাই নয়, ইয়াবাকারবারী ফরিদের সাথে ব্যবসা স্থায়ী করার জন্য তার মেয়েকেও বিয়ে করেছে কাদের।
স্থানীয় সচেতন মহলরা জানান, এক সময়ের জেলে ফজল কাদের ইয়াবা ব্যবসার সাথে জড়িয়ে ইয়াবার কালো টাকার পাহাড় দিয়ে সোনার পাড়া মালকাবানু মার্কেটসহ কোটি কোটি টাকার সম্পদ ক্রয় করার পাশাপাশি নিজেকে রক্ষা করার জন্য যুবলীগের খাতায়ও নাম লিখিয়েছেন। সম্প্রতি র‌্যাব ৭ কক্সবাজারের একটি দল গোপন সংবাদের ভিত্তিতে রেজু ব্রীজ এলাকায় তল্লাশি চালিয়ে সিএনজিভর্তি ইয়াবাসহ পাচারকারীকে আটক করলেও উক্ত ইয়াবার সাথে জড়িত গডফাদার ফজল কাদের ও লুৎফুর রহমানকে আটক করতে সক্ষম হয়নি।
প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, র‌্যাবের উপস্থিতি টের পেয়ে আটককৃত ইয়াবার সাথে জড়িত ফজল কাদের র‌্যাবের গ্রেপ্তারের কবল থেকে অল্পের জন্য রক্ষা পেয়েছে। এর পর থেকে ফজল কাদের ক্রসফায়ারের কবল থেকে নিজেকে রক্ষা করার জন্য ভারত পাড়ি দেয়। একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনকে ঘিরে সংশ্লিষ্ট প্রশাসন দেশে একটি সুন্দর ও গ্রহন যোগ্য নির্বাচন উপহার দেওয়ার লক্ষে ব্যস্থতার সুযোগকে কাজে লাগিয়ে  সে বাংলাদেশে এসে গোপনে রামু থানায় তার বিরুদ্ধে দায়েরকৃত মাদক মামলা থেকে সে অব্যাহত পাওয়ার জন্য  কক্সবাজারে অবস্থান নিয়ে কোটি   টাকার মিশন নিয়ে দৌড়ঝাপ শুরু করেছে বলেও জানা গেছে।

সচেতন মহলরা আরো বলেন, শিঘ্রই ফজল কাদের ও লুৎফুরকে গ্রেপ্তার পূর্বক ক্রসফায়ারের আওতায় নিয়ে এসে এলাকার শান্তি শৃংখলা ফিরিয়ে আনার জন্য র‌্যাব ৭ কক্সবাজারের হস্তক্ষেপ কামনা করছি। অন্যতায় ফজল কাদেরের মাদকের ভয়াল থাবা থেকে এলাকার উঠতি বয়সী ছাত্র ও যুবসমাজকে কখনো রক্ষা করা সম্ভব হবেনা। এব্যাপারে উখিয়া থানার ওসি মোঃ আবুল খায়ের জানান, ইয়াবা ব্যবসার সাথে জড়িত গডফাদারদেরকে গ্রেপ্তারের আওতায় নিয়ে আসা হবে।

Share this post

scroll to top