উখিয়ার শীর্ষ মানব পাচারকারী রুস্তম আলী বেপরোয়া

pic-1-5.jpg

শাকুর মাহমুদ চৌধুরী উখিয়া ::

থাইল্যান্ড, মালেশিয়ার অস্থায়ী কারগার ও উখিয়ার উপক’লীয় অঞ্চলের সাগরপথ নিয়ন্ত্রক উপজেলার জালিয়াপালং ইউনিয়নের সোনাইছড়ি গ্রামের মৃত ইউছুপ আলীর ছেলে মানব পাচার আইনের সংশ্লিষ্ট ধারায় একাধিক মামলার আসামী রুস্তম আলী প্রকাশ রুস্তম দালাল ফের সক্রিয় হয়ে উঠেছে বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে।
জানা যায়, উপজেলার জালিয়াপালং ইউনিয়নের সোনাইছড়ি গ্রামের আন্ডার গ্রাউন্ডে থাকা ও আন্ডার ওয়াল্ড মানব পাচারকারী নামে খ্যাত রুস্তম দালাল বৃহত্তর সিন্ডিকেট তৈরি করে দীর্ঘ দিন ধরে দেশের বিভিন্ন অঞ্চলে সিন্ডিকেটের মাধ্যমে হতদরিদ্র জনগোষ্টি ও এলাকার সহজ সরল লোকজনকে রাতারাতি কোটিপতি হওয়ার স্বপ্ন দেখিয়ে সাগর পথে মালেশিয়া পাচারের উদ্দেশ্য থাইল্যান্ডের গভীর অরণ্য তাদের অস্থায়ী কারাগারে নিয়ে গিয়ে তাদের কে শারীরিক ও মানষিক নির্যাতন চালিয়ে তাদের স্বজন দের নিকট থেকে হাতিয়ে নিচ্ছে লাখ লাখ টাকা হাতিয়ে নিয়ে রাতারাতি আঙ্গুল ফুলে কলা গাছে পরিণত হয়ে কোটিপতির খাতায় নাম লিখিয়েছেন বলে জানা গেছে। সম্প্রতি সংশ্লিষ্ট আইনশৃংলা বাহিনীর চোখ কে ফাঁকি দিয়ে সোনাইছড়ি বাদমতলী এলাকার মানব পাচারকারীদের অস্থায় এয়ারপোর্ট থেকে মালেশিয়া মানব পাচার পাচার ফের শুরু হয়েছে বলে জানা গেছে। স্থানীয় সচেতন মহলের দাবী, অচিরেই মানব পাচারকারীদের অন্যতম গডফাদার রুস্তমকে গ্রেপ্তার পূর্বক কঠিন শাস্তির আওতায় নিয়ে আসা না হলে এলাকার উঠতি বয়সী যুবসমাজকে পাচারকারীদের কবল থেকে রক্ষা করা কঠিন হয়ে পড়বে বলে তারা মনে করেন। তাই তার গ্রেপ্তারে জেলা পুলিশ সুপার ও র‌্যাব ৭ কক্সবাজারের হস্তক্ষেপ কামনা করছেন।
এব্যাপারে, থানার ওসি মোঃ আবুল খায়ের উক্ত মানব পাচারকারী কে গ্রেপ্তার পূর্বক কঠিন শাস্তির আওতায় নিয়ে আসা হবে বলে তিনি জানান।

Share this post

scroll to top