উখিয়ার ডেইলপাড়া রেজুখালের রাজঘাটে ব্রীজ সংকট

pic-a-7.jpg

কায়সার হামিদ মানিক উখিয়া ::

উখিয়ার পূবাঞ্চলীয় এলাকায় ডেইলপাড়া রেজুখালের রাজ ঘাটে একটি ব্রীজের অভাবে হাজারো শিক্ষার্থী ও গ্রামবাসীকে পোহাতে হচ্ছে অবর্ননীয় দূর্ভোগ। বিকল্প যোগাযোগের মাধ্যম প্রায় ১ কিলোমিটার পশ্চিমে দরগাহ্বিল ডেইলপাড়া সংযোগ ব্রীজটি ধ্বসে পড়ার দ্বারপ্রান্তে উপনীত হওয়ায় এলকাবাসী খরশ্রোতা রেজু খাল পাড়াপারে সুবিধাজনক স্থানে অচিরেই একটি ব্রীজ নির্মানের জন্য উপজেলা প্রশাসনের হস্তক্ষেপ কামনা করেেছন।

সরজমিন উখিয়া প্রত্যন্ত এলাকায় ডেইলপাড়া দরগাহ্বিল ঘুরে শিক্ষার্থী, গ্রামবাসী ও বিভিন্ন শ্রেনী পেশার মানুষের সাথে কথা বলে জানা যায় সীমান্তের ওয়ালীডং পাহাড়ের পাদদেশ থেকে প্রাকৃতিক উপায়ে সৃষ্ট রেজু খালটি বর্ষা মৌসুমে পানিতে টুইটম্বুর হয়ে পড়ে। পাহাড় থেকে নেমে আসার পানির স্রোতে এ খালে কোন প্রকার সাকো ধরে রাখা যায় না। স্থানীয় সাবেক ইউপি সদস্য মাওলানা সৈয়দ আকবর জানান ডেইলপাড়া দরগাহ্বিল সংযোগস্থলে ছব্বির মেম্বারের বাড়ির পাশে ২ যুগ পূর্বে উখিয়া এলজিইডি একটি ফুট ব্রীজ নির্মান করে দিলে শিক্ষার্থী ও গ্রামবাসী ঐ ফুট ব্রীজটি ব্যবহার করে যোগাযোগ রক্ষা করত। খরস্রোতা রেজুর পানির তীব্র স্রোতে ঐ ফুট ব্রীজটি যেকোন সময়ে ধ্বসে পড়ার আশংকায় ঐ ব্রীজটি এখন ব্যবহারিত হচ্ছে না।

ডেইপাড়া উচ্চ বিদ্যালয়ে বিপুল পরিমান শিক্ষার্থীর আসা যাওয়ার একমাত্র মাধ্যম ডেইলপাড়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় সংলগ্ন রেজুখালের রাজঘাট এলাকায় গিয়ে দেখা যায় পানি শূন্য খাল পাড় হয়ে ছাত্রীরা ডেইলপাড়া উচ্চ বিদ্যালয়ে যাওয়া আসা করছে। ছাত্রীদের সাথে আলাম করা হলে তারা জানায় বর্ষা কালে পানিতে খাল পরিপূর্ন থাকায় স্কুলে আসা যাওয়া হয় না। ডেইপাড়া স্কুলের ছাত্রী নাজমুন নাহার জানায় বৃহত্তর ডেইলপাড়া ও দরগাহ্বিলের স্কুল পড়ুয়া শিক্ষার্থীদের নিরাপদ যাতায়াতের লক্ষ্যে রেজুখালের রাজঘাট এলাকায় একটি ব্রীজ নির্মান করা হলে শিক্ষা-দিক্ষা, উপজেলার সাথে যোগাযোগ রক্ষা মুমুর্ষ রোগীদের হাসপাতালে নিয়ে যাওয়াসহ এখানকার উৎপাদিত পন্য বাজারজাত করনে কোন সমস্যা হতোনা।

ডেইলপাড়া উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক গফুর আলম জানান রেজু খালের দক্ষিনে প্রায় শতাধিক উচ্চ বিদ্যালয়ের ছাত্র/ছাত্রীকে বর্ষা মৌসুমে ঝুকিঁ নিয়ে স্কুলে আসতে হয়। তিনি বলেন রেজুখালের রাজঘাট এলাকায় একটি ব্রীজ নির্মান করা হলে এলকায় শিক্ষার্থী হার আর বৃদ্ধি পাওয়ার সম্ভাবনা ছিল। ডেইলপাড়া উচ্চ বিদ্যালয়ের পরিচালনা কমিটির প্রতিষ্ঠাতা সভাপতি জালাল আহম্মদ চৌধুরী জানান রেজুখালের উপর ব্রীজ নির্মানের প্রশাসনের বিভিন্ন দপ্তরে বিশেষ করে উপজেলা প্রকৌশল অধিদপ্তরে (এলজিইডি)। বেশ কয়েকবার ধরনা দিয়েও কোন কাজ হয়নি। যে কারনে প্রতি বর্ষা মৌসুমে এলকার প্রায় ১০ হাজার পরিবারকে পানিবন্ধী অবস্থায় দিন অতিবাহিত করতে হয়।
এ প্রসঙ্গে জানতে চাওয়া হলে উপজেলা সহকারী প্রকৌশলী সোহরাব হোসেন জানান গত অর্থ বছরে দরগাহ্বিল ডেইলপাড়া সংযোগ ব্রীজটি সংস্কার করে দেওয়া হয়েছিল। নতুন করে ব্রীজ নির্মানে এ পর্যন্ত কোন আবেদন পাওয়া যায় নি।

Share this post

scroll to top