বিজিবির সঙ্গে ‘বন্দুকযুদ্ধে’ রোহিঙ্গা মাদক কারবারি নিহত

madok-cross.jpg

উখিয়া ক্রাইম নিউজ ডেস্ক::

টেকনাফে বিজিবির সঙ্গে বন্দুকযুদ্ধে মো. আয়াস (২৫) নামে রোহিঙ্গা মাদক কারবারি নিহত হয়েছে।
শনিবার (১৮ জানুয়ারি) দিবাগত রাতে নাফনদীর লালদ্বীপ এলাকায় এ ঘটনা ঘটে।
বিজিবির দাবি, বন্দুকযুদ্ধে তাদের তিন সদস্য আহত হন। ঘটনাস্থল থেকে বিপুল পরিমাণ ইয়াবা উদ্ধার করা হয়েছে।
নিহত মাদক কারবারি উখিয়া উপজেলার কুতুপালং ২ নম্বর ক্যাম্পের ব্লক-ডি-৪ এর বাসিন্দা মো. জামাল হোসনের ছেলে।
টেকনাফ-২ বিজিবি ব্যাটালিয়নের অধিনায়ক লেফটেন্যান্ট কর্নেল মোহাম্মদ ফয়সল হাসান খান জানান, বিজিবি জানতে পারে মিয়ানমার থেকে ইয়াবার একটি বড় চালান জাদিমোরা সীমান্ত হয়ে বাংলাদেশে অনুপ্রবেশ করবে। এমন সংবাদের ভিত্তিতে বিজিবি সদস্যরা শিকল ঘেরা এলাকায় অবস্থান নেয়। কিছুক্ষণ পরে নাফনদীর লালদ্বীপ হয়ে একটি নৌকা করে কয়েকজন লোক বাংলাদেশে অনুপ্রবেশের চেষ্টা করে। এমন সময় বিজিবি সদস্যরা তাদের চ্যালেঞ্জ করে। এক পর্যায়ে নৌকা থেকে বিজিবি সদস্যদের ওপর গুলি করতে থাকে। বিজিবি সদস্যরাও আত্মরক্ষার্থে পাল্টা গুলি ছোড়ে। ৫ থেকে ৬ মিনিট গোলাগুলির পরে নৌকায় থাকা মাদক কারবারিরা মিয়ানমার সীমান্তে পালিয়ে যাওয়ার জন্য নদীতে ঝাঁপ দেয়। পরে পরিস্থিতি শান্ত হলে ঘটনাস্থল থেকে ২ লাখ ২০ হাজার পিস ইয়াবা, নৌকা, একটি দেশীয় বন্দুক, এক রাউন্ড তাজা এবং এক রাউন্ড খালি খোসা এবং গুলিবিদ্ধ এক মাদক কারবারিকে উদ্ধার করা হয়।
উদ্ধারকৃত মাদক কারবারিকে টেকনাফ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে প্রাথমিক চিকিৎসা দিয়ে উন্নত চিকিৎসার জন্য কক্সবাজার জেলা সদর হাসপাতালে পাঠানো হয়। সেখানে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করে।
বিজিবির দাবি, উদ্ধারকৃত ইয়াবার আনুমানিক বাজার মূল্য ছয় কোটি ৬০ লাখ টাকা। এই বিষয়ে আইনি প্রক্রিয়া অব্যাহত রয়েছে বলেও জানান বিজিবির এই অধিনায়ক।

Share this post

scroll to top