উখিয়ার সদর বিট কর্মকর্তা টু পয়সা ইনকামে ব্যস্ত?

45454545-3.jpg

উখিয়া ক্রাইম নিউজ ডেস্ক::

কক্সবাজার দক্ষিণ বন বিভাগের উখিয়া রেঞ্জের আওতাধীন সদর বিট এলাকার সরকারি বন ভূমি জবরদখল ও পাহাড় কাটা কে থামাবে?

সরজমিন টিএন্ডটি ও পাতাবাড়ী এলাকা ঘুরে এলাকার বেশ কয়েকজন লোকের সাথে কথা বলে জানা যায়, উখিয়া সদর বিটের বিট কর্মকর্তা মাহমুদুল হাসানের বিরুদ্ধে পাহাড়সম অভিযোগ। এলাকার লোকজন বয়ে বেড়াচ্ছে বিট কর্মকর্তা মাহমুদুল হাসানকে টাকা না দিলে সদর বিট এলাকার একটি পাতাও নড়বেনা।

এলাকার একাধিক লোকজন অভিযোগ করে বলেন, সরকারি বন ভূমির পাহাড় কেটে মাটি পাচার ও বন ভূমি দখল করে বাড়ী নির্মাণ করলে অবৈধ ঘটনাটি সঠিক বলে তাবা দাবী করেন। তারা আরো বলেন, বিট কর্মকর্তা মাহমুদুল হাসানকে টাকা দিলে ওই বনভূমি দখল ও পাহাড় কাটা কি ভাবে বৈধ হয়ে যায় প্রশ্নের তীর বিভাগীয় বন কর্মকর্তার নিকট? বৃহস্পতিবার সকাল 10টার দিকে দেখা যায়, উখিয়া সদর বিটের শীলের ছড়া এলাকায় সরকারি বন ভূমির বিশাল পাহাড় কেটে সাবাড় করে দিয়েছে, পথচারীদের নিকট জানতে চাওয়া হলে মৃত উপন্দ্র বড়ুয়ার ছেলে পুনি বড়ুয়া প্রকাশ পুনি বৈদ্দ্য বড়ুয়া ও তার ছেলে কুয়েত প্রবাসী জিন মহন বড়ুয়ার নেতৃত্বে পাহাড় কেটে মাটি পাচার করা হয়েছে বলে তারা জানান। অপর দিকে পাতাবাড়ী এলাকার মৃত সাধন বড়ুয়ার ছেলে অজিত বড়ুয়া সরকারি বন ভূমির জায়গা দখল করে নির্মাণ করে যাচ্ছে আলিমান বাড়ী। জানতে চাওয়া হলে তিনি বলেন, বিট কর্মকর্তার সাথে কথা বলে বাড়ী নির্মাণ করা হচ্ছে।

স্থানীয়দের অভিযোগ, আর কত বন সম্পদ ধ্বংস হলে দূর্নীতিবাজ বিট কর্মকর্তা মাহমুদুল হাসানের বিরুদ্ধে বন বিভাগ ব্যবস্থা নেবে? শুধু তাই নয়, স্থানীয় বিট অফিসার মাহমুদুল হাসানের সার্বিক সহযোগিতায় ও মোটা অংকের টাকার বিনিময়ে সদর বিট এলাকার বন সম্পদ বর্তমানে প্রায় শূণ্যের কোটায় চলে গেছে বলেও জানান তারা।

সহকারী বন সংরক্ষক (উখিয়া রেঞ্জের দায়িত্ব প্রাপ্ত) তারিকুর রহমান বলেন, পাহাড় কাটার সাথে জড়িত সে যেই হোক না কেন তাকে আইনের আওতায় নিয়ে আসা হবে এবং উক্ত পাহাড় কাটার সাথে আমার কোন অফিসার জড়িত থাকলে থাকেও ছাড় দেওয়া হবেনা বলে তিনি জানান।

 

 

Share this post

scroll to top