থাইংখালীর ইয়াবা বাজার ৩ গডফাদারের দখলে

MM.jpg

উখিয়া ক্রাইম নিউজ ডেস্ক::

টেকনাফে মাদক কারবারীদের দফায় দফায় দুটি আত্নসর্ম্পণ অনুষ্টান সমাপ্ত হলেও উখিয়া সীমান্তের শীর্ষ ইয়াবা কারবারীরা উক্ত আত্নসর্ম্পণ অনুষ্টানে অংশ গ্রহন করেনি। যার ফলে উখিয়া সীমান্তের ইয়াবা কারবারীরা দিন দিন আরো বেপরোয়া হয়ে উঠেছে বলে জানা গেছে।
সম্প্রতি টেকনাফ উপজেলা কমিউনিটি পুলিশিংয়ের উদ্যোগে মাদককারবারীদের আত্নসর্ম্পণ ও সংবর্ধণা। ২০১৯ সালের ১৬ ফেব্রুয়ারী টেকনাফ পাইলট উচ্চ বিদ্যালয় খেলার মাঠে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান কামালের উপস্থিতিতে ১০২ জন শীর্ষ ইয়াবাকারবারী আত্নসর্ম্পণ করেন। ২য় দফায় গত ৩ ফেব্রুয়ারী ২০২০ ইং ছোট বড় ৩০ জন ইয়াবাকারবারী আত্নসর্ম্পণ করেন।
বিভিন্ন দায়িত্বশীল সূত্রে ও এলাকাবাসীর তথ্যমতে উখিয়ার পালংখালী ইউনিয়নের থাইংখালী রহমতেরবিল সীমান্তের চলুর ছেলে ইয়াবা ব্যবসায়ীদের জনক আনোয়ার প্রকাশ ইয়াবা আনোয়ার সে সম্প্রতি বিজিবি ও ইয়াবা কারবারীদের সাথে গুলি বিনিময়ের সময় আহত হয়ে অল্পের জন্য রক্ষা পেয়ে বর্তমানে কক্সবাজার এলাকায় চিকিৎসাধীন রয়েছে বলে জানা গেছে। সে আহত হওয়ার পর থেকে তার মাদক ব্যবসা নিয়ন্ত্রন করছে ছোট ভাই সাইফুল, তার চেইন অব কমান্ড বইদ্দ্য জাফরের ছেলে রহিম ও আনোয়ার প্রকাশ লাল পুতিয়ার নেতৃত্বে এলাকায় বৃহত্তর সিন্ডিকেট তৈরি করে দিবারাত্রি চালিয়ে যাচ্ছে রমরমা মাদক ব্যবসা। কিন্তু দেখার কেউ নেই। উক্ত সিন্ডিকেট সংশ্লিষ্ট প্রশাসনের চোঁখকে ফাঁকি দিয়ে দীর্ঘ দিন ধরে সাগর ও সড়ক পথে হাড়ি হাড়ি ইয়াবা দেশের বিভিন্ন অঞ্চলে পাচার করে রাতারাতি আঙ্গুল ফুলে কলা গাছে পরিণত হয়েছে, বিভিন্ন স্থানে শতাধিক গডফাদারের নেতৃত্বে পুরো উখিয়ায় অন্তত ২০টি সিন্ডিকেট মোটা দাগের ইয়াবা লেনদেন ও পাচার কাজে লিপ্ত রয়েছে বলে অভিযোগ উঠেছে। সচেতন অভিভাবকদের অভিমত, বর্তমান ভয়াবহ জঙ্গী ও সন্ত্রাসী কর্মকান্ডের সাথে যেসব কিশোর, যুবক জড়িয়ে পড়েছে, তাদের একটি অংশ মাদকাসক্ত ও মাদক পাচারের সাথে কোন না কোনভাবে সম্পৃক্ত রয়েছে বলে ধারণা করা হচ্ছে। তাদের মতে, কারা ইয়াবা পাচার করে বিপুল বিত্ত বৈভবের মালিক হয়েছে, তাদের সম্পর্কে আইন শৃংখলা রক্ষাকারী বাহিনী, বিশেষ করে র‌্যাব, গোয়েন্দা সংস্থা, জাতীয় রাজস্ব বোর্ড, দুর্নীতি দমন কমিশন সহ সমাজের ৃস্থানীয় নেতৃবৃন্দের সমন্বিত প্রচেষ্টায় বা নজরদারির দ্রুত ব্যবস্থা না নিলে, আগামী প্রজন্ম খুবই অন্ধকারাচ্ছন্ন হয়ে পড়বে।
উখিয়া থানার অফিসার ইনচার্জ মর্জিনা আক্তার মরর্জি, ইয়াবা ব্যবসায়ীদের চিহ্নিত করে জড়িতদের দ্রুত গ্রেপ্তারের আওতায় নিয়া আসা হবে বলে তিনি জানান।

Share this post

scroll to top