থাইংখালীতে অস্ত্রধারীদের হামলায় আহত ৪

91571551_640212249873716_8926679832100601856_n.jpg

উখিয়া ক্রাইম নিউজ ডেস্ক::

উখিয়ার ক্রাইম জোন পালংখালী ইউনিয়নের থাইংখালীতে আরমান বাহিনীর নেতৃত্বে একদল অস্ত্রধারীরা হামলা চালিয়ে মহিলাসহ ৪ জনকে গুরুতর আহত করেছে। শুক্রবার সকাল সাড়ে ৯ টায় এ ঘটনাটি ঘটেছে।
সরজমিন ও এলাকার বেশ কয়েকজন লোকের সাথে কথা বলে জানা গেছে, পালংখালী ইউনিয়নের তাজনিমারখোলা গ্রামের নজু মিয়ার দুই ছেলে জাহাঙ্গীর আলম ও আলমগীর প্রতি দিনের ন্যায় কাচাঁ তরকারি নিয়ে টমটম গাড়ী যোগে তাজনিমারখোলা ক্যাম্প বাজার এলাকায় যাওয়ার পথে তেলখোলা সড়কে পৌছলে একই এলাকার মোঃ ইসলামের ছেলে এলাকার চিহ্নিত অস্ত্রধারী ও শীর্ষ সন্ত্রাসী আরমানের নেতৃত্বে শামশুল আলমের ছেলে আলমগীর, মৃত উলা মিয়ার ছেলে শামশুল আলম, জাফর আলম জুনুর দুই ছেলে অস্ত্রধারী খুরশেদ ও মোরশেদ, ফরিদ আলমের ছেলে আলমগীরসহ শীর্ষরা ৪টি টমটম গাড়ী গতিরোধ করে চাঁদা দাবী করে থাকে বলে প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, এসময় তরকারি ব্যবসায়ী জাহাঙ্গীর আলম ও আলমগীর চাঁদার টাকা দিতে অনিহা প্রকাশ করিলে তাদেরকে ধারালো অস্ত্র, দা, কিরিচ, লোহার রড় দিয়ে এলোপাতাড়ি হামলা চলাকালে খবর পেয়ে অস্ত্রধারীদের কবল থেকে উদ্ধার করতে একই এলাকার সরওয়ার আলমের স্ত্রী মনোয়ারা বেগম, মেছবাহ উদ্দিনের স্ত্রী মনোয়ারা বেগম এগিয়ে আসলে অস্ত্রধারীরা ক্ষিপ্ত হয়ে তাদেরকেও হামলা চালিয়ে গুরুতর জখম করে বলে জানা গেছে। উক্ত ঘটনায় এলাকায় থমথমে অবস্থা বিরাজ করছে বলে জানা গেছে।
এসময় লোকজন এগিয়ে এসে অস্ত্রধারীদের কবল থেকে আহতদের উদ্ধার করে উখিয়া হাসপাতালে ভর্তি করেন বলে জানিয়েছেন আহতদের পিতা নজু মিয়া। এব্যাপারে কর্তব্যরত চিকিৎসক আহতরা সংখ্যামুক্ত নয় বলে প্রতিবেদককে জানিয়েছেন।
সরওয়ার কামাল জানান, শীর্ষ সন্ত্রাসী ও অস্ত্রধারী আরমান বাহিনীর প্রধান আরমানকে গ্রেপ্তারে উদ্ধার হবে অনেক অবৈধ অস্ত্র ও বেরিয়ে আসবে গুরুত্বপূর্ণ তথ্য। শুধু তাই নয়, তাদের দিনে দুপুরে অবৈধ অস্ত্রের অপব্যবহারের ফলে এলাকার সাধারন মানুষ জিম্মি। তাদের বিরুদ্ধে থানা বা আদালতের আশ্রয় নিলে তাদেরকে স্ব- পরিবারে হত্যা করে লাশ গুম করা হবে মর্মে হুমকি ধমকি দিচ্ছে। তাই তাদেরকে গ্রেপ্তার পূর্বক কঠিন শাস্তির আওতায় নিয়ে আসার জন্য জেলা পুলিশ সুপার ও উখিয়া থানার ওসির হস্তক্ষেপ কামনা করছি। স্থানীয় ইউপি চেয়ারম্যান এম গফুর উদ্দিন চৌধুরী ঘটনার সত্যতা স্বীকার করেন।

Share this post

scroll to top