উখিয়ায় বন্দুকযুদ্ধে ইয়াবা কারবারী নিহত : এএসপি তাইয়ান আহত

pic-1.jpg

উখিয়া ক্রাইম নিউজ ডেস্ক::

উখিয়া উপজেলার পালংখালী ইউনিয়নের বালুখালীর মরাগাছতলায় (বালুখালী ক্যাম্প ১১) পুলিশের সাথে বন্ধুকযুদ্ধে একজন রোহিঙ্গা ইয়াবা কারবারী নিহত হয়েছে। ঘটনাস্থল আরো ৫ জন ইয়াবাকারবারীকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। তাদের কাছ থেকে ১লক্ষ ১০ হাজার পিচ ইয়াবা, একটি এলজি ও ৪ রাউন্ড কার্তুজ উদ্ধার করা হয়। নিহত রোহিঙ্গা ইয়াবাকারবারীর মৃত কবির আহম্মদের ছেলে শওকত আলী। রোববার ১০ মে রাত সাড়ে ১২ টার দিকে এ ঘটনা ঘটে।

উখিয়া থানার ওসি মর্জিনা আক্তার মর্জু এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন। তিনি আরো জানান, গোপন  সংবাদের ভিত্তিতে   উখিয়া থানার পুলিশের একটি দল ক্যাম্প ১১ এর  তিনটি রোহিঙ্গা বাড়ীতে  অভিযান চালিয়ে প্রায় ১লাখ ১০ হাজার পিস ইয়াবা উদ্ধার করে। পরে আটককৃত শওকতের তথ্যমতে  ইয়াবাকারবারী প্রচুর ইয়াবা পাচারের জন্য বালুখালী মরাগাছতলা নামক  স্থানে আছে বলে নিশ্চিত করলে। তখন পুলিশ রাত সাড়ে ১২ টার দিকে ঘটনাস্থলের কাছাকাছি যেতেই ইয়াবাকারবারীরা পুলিশের উপস্থিতি  টের পেয়ে পুলিশকে লক্ষ্য করে গুলি ছুড়ে। তখন পুলিশও আত্মরক্ষার্থে গুলি ছুড়লে রোহিঙ্গা ইয়াবাকারবারী শওকত আলী, অতিরিক্ত পুলিশ সুপার উখিয়া (সার্কেল) নিহাদ আদনান তাইয়ান ও অপর ২ পুলিশ সদস্য আহত হয়। গুরতর আহত অবস্থায় শওকত আলীকে উখিয়া উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে আনা হলে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষনা করে এবং আহত অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (উখিয়া সার্কেল) নিহাদ আদনান তাইয়ান ও অপর পুলিশ সদস্যদ্বয়কে প্রাথমিক চিকিৎসা দেওয়া হয়েছে।

উখিয়া থানার ওসি মর্জিনা আক্তার মর্জু আরো জানান, নিহত রোহিঙ্গা ইয়াবাকারবারী শওকত আলীর লাশ ময়নাতদন্তের জন্য কক্সবাজার জেলা সদর হাসপাতালের মর্গে প্রেরণ করা হয়েছে। ধৃত ৫ জন সহ ৬ জনের বিরুদ্ধে অস্ত্র ও মাদক দ্রব্য নিয়ন্ত্রণ আইনে পৃথক ২টি মামলা দায়ের করে তাদেরকে কোর্ট ইন্সপেক্টরের মাধ্যমে আদালতে প্রেরণ করা হচ্ছে।

Share this post

scroll to top