সংবাদ শিরোনাম
উখিয়ায় বন বিভাগের অভিযানে অবৈধ বালি উত্তোলনের সরঞ্জমাধি উদ্ধারউখিয়ার ডেইলপাড়া করইবনিয়া এলাকা ইয়াবার জোওয়ারে ভাসছেউখিয়ার শীর্ষ ইয়াবা ডন মীর আহম্মদ অধরাহাজীর পাড়ার শীর্ষ ইয়াবা কারবারী মীর আহম্মদকে ধরিয়ে দিনউখিয়ার নুরুল আলমকে গ্রেপ্তারে বেরিয়ে আসবে ইয়াবা ও অস্ত্রসহ গুরুত্বপূর্ণ…থাইংখালী বিট কর্মকর্তার বিরুদ্ধে পাহাড়সম দুর্নীতির অভিযোগউখিয়ায় বন বিভাগের অভিযানে মাটিবর্তী ডাম্পার গাড়ী আটকজালিয়া পালংয়ে ছিনতাইকারীদের হাতে নিঃশ্ব হলেন খামার ব্যবসায়ী – আহত…উখিয়ার শীর্ষ ইয়াবা কারবারী আলী আকবর বিদেশী মদসহ আটকউখিয়ার মুছারখোলা বিট কর্মকর্তা আবছারের নেতৃত্বে পাহাড় কাটা ও বালি…

ইয়াবার রাজা সোহেল গ্রেপ্তার আতংকে

0y.jpg

উখিয়া ক্রাইম নিউজ ডেস্ক::

মিয়ানমার সীমান্ত ঘেষা পালংখালী ইউনিয়নের থাইংখালী সীমান্তের ইয়াবা ব্যবসায়ীদের জনক সোহেল গ্রেপ্তার এড়াতে দিবারাত্রি ঘুরছে বনে জঙ্গলে বলে জানা গেছে।
উপজেলার পালংখালী ইউনিয়নের রহমতেরবিল গ্রামের সাবেক ইউপি মহিলা মেম্বার নুর বানুর ছেলে সোহেল প্রকাশ ইয়াবা সোহেল দীর্ঘ দিন ধরে ইয়াবা ব্যবসার সাথে জড়িয়ে ও সিন্ডিকেটের মাধ্যমে দেশের গুরুত্বপূর্ণ শহরে হাড়িহাড়ি ইয়াবা পাচার করে রাতারাতি শূণ্যে থেকে কোটিপতির খাতায় নাম লিখিয়েছেন। স্থানীয় আবু তাহের জানান, সোহেল ইয়াবার বদৌলতে শত কোটি টাকার মালিক হলেও বহাল তবিয়েতে চালিয়ে যাচ্ছে রমরমা ইয়াবা ব্যবসা। কিন্তু দেখার কেউ নেই।
সম্প্রতি বিপুল পরিমান ইয়াবার চালান নিয়ে সোহেল আটক হয়। পরে জামিনে মুক্ত হয়ে ফের ইয়াবা পাচারে বেপরোয়া হয়ে উঠেছে বলে জানা গেছে। শুধু তাই নয়, ইয়াবা সোহেল এর অত্যাচার ও নির্যাতনে এলাকার সাধারন মানুষ জিম্মি দষায় জীবন যাপন করছে বলেও একাধিক ভুক্তভোগীরা প্রতিবেদককে জানিয়েছেন।
আজ সে ইয়াবার বদৌলতে শূণ্যে থেকে কোটিপতিসহ সমাজে বিখ্যাত ইয়াবা পরিবার হিসাবে সুনাম অর্জন করেছেন। তার বিরুদ্ধে মাদক আইনের সংশ্লিষ্ট ধারায় একাধিক মামলা থাকলেও রহস্যজনক কারনে পুলিশ তাকে আইনের আওতায় আনছেনা বলে মন্তব্য করেন স্থানীয় সুশিল সমাজম।
স্থানীয় সচেতন মহলরা আরো বলেন, উখিয়া – টেকনাফ সীমান্তে ইয়াবা ব্যবসায়ীদের মধ্যে সোহেল শীর্ষ অবস্থানে রয়েছে। বর্তমানে থাইংখালী সীমান্তের ইয়াবা বাজার সোহেলের দখলে বলেও জানা গেছে। তাই অতি শিঘ্রই তাকে গ্রেপ্তার পূর্বক কঠিন শাস্তির আওতায় নিয়ে আসার জন্য জেলা পুলিশ সুপার ও র‌্যাব ১৫ কক্সবাজারের হস্তক্ষেপ জরুরী বলে তারা দাবী করেন।

Share this post

scroll to top