সংবাদ শিরোনাম
উখিয়ার জামতলী শফি উল্লাহ কাটা ক্যাম্প বাজারের খাস কালেকশনের নামে…থাইংখালীতে সরওয়ারের নেতৃত্বে সরকারি বনভুমিতে নির্মিত হচ্ছে স্থাপনামানবপাচারকারী জালাল জুতার মালা ও কোদাল দিয়ে মাথার চুল উপড়িয়ে…থাইংখালীতে সরওয়ারের নেতৃত্বে সরকারি বনভুমিতে নির্মিত হচ্ছে স্থাপনাকক্সবাজারে গণবদলির পর নতুন ওসি-এসআইসহ ৩৭ জনকে পোস্টিংকক্সবাজার থেকে শীর্ষ কর্মকর্তাসহ পুলিশের ১৩৪৭ সদস্য বদলিরোহিঙ্গাদের বাংলাদেশী জাতীয় পত্র বানিয়ে দিচ্ছে একটি সিন্ডিকেট, জড়িত শিক্ষক…নাফ নদীতে গোলাগুলি করে ৫০ হাজার ইয়াবা উদ্ধারউখিয়ায় ইয়াবাসহ দুই রোহিঙ্গা আটকউখিয়ার চাঞ্চল্যকর ফোর মার্ডার ঘটনার এক বছর

মনখালীতে জমি সংক্রান্ত বিরোধের জের ধরে রক্তক্ষয় সংঘর্ষের আশংকা

উখিয়া ক্রাইম নিউজ ডেস্ক::

উখিয়ার মনখালীতে জমি সংক্রান্ত বিরোধের জের ধরে রক্তক্ষয় সংঘর্ষের আশংকা দেখা দিয়েছে। হঠাৎ জমি জমার মূল্যে বেড়ে যাওয়ার ফলে প্রতিনিয়ত সংঘাত লেগেই আছে।
সরজমিন ঘটনাস্থল ঘুরে এলাকার বেশ কয়েকজন লোকের সাথে কথা বলে জানা গেছে, উপজেলার জালিয়াপালং ইউনিয়নের মনখালী কোনার পাড়া গ্রামের আবুল হোসনের দুই ছেলে এলাকার চিহ্নিত ভুমিদস্যু ও শীর্ষ সন্ত্রাসী শফিউল্লা, রফিকুল্লা, ছৈয়দ আলম ও ছৈয়দ করিম গংরা ২০১১ সালে একই এলাকার হাজী মোঃ শরিফ ও তার ছেলে রফিকুল হুদাকে ৩২২১ ও ২০০৬ দলিল মুলে প্রায় ৮০ শতকেরও অধিক জমি বিক্রয় করেন বলে জানা গেছে। জমি বিক্রির দীর্ঘ দিন অতিবাহিত হলেও জমির মালিক ভুক্তভোগী রফিকুল হুদাকে অধ্যবধি পর্যন্ত জমি বুঝিয়ে দেননি।
ভুক্তভোগী রফিকুল হুদা অভিযোগ করে বলেন, উল্লেখিত ভুমিদস্যুরা আমার ক্রয়কৃত জমি আমাকে ভোগদখল করতে দিচ্ছেনা। আমি আমার ক্রকৃত জমিতে চাষাবাদ করতে গেলে উক্ত ভুমিদস্যুরা আমার নিকট থেকে ২০ লাখ টাকা চাঁদা দাবীর পাশাপাশি আমাকে হত্যা করে লাশ ঘুম করার হুমকি ধমকি দিচ্ছে। বর্তমানে উক্ত ভুমিদস্যু ও অস্ত্রধারীদের অব্যহত হুমকির মূখে আমি চরম নিরাপত্তাহীনতায় ভোগছি। তাই আমার ক্রয়কৃত সম্পদ উদ্ধার ও আমার জীবনের নিরাপত্তার জন্য জেলা পুলিশ সুপার ও র‌্যাব ১৫ এর হস্তক্ষেপ কামনা করছি। শুধু তাই নয়, এরা এতযে বেপরোয়া তারা থানা পুলিশ ও আইন আদালত কিছু মানেনা। তাই অতি দ্রুত তদন্তপূর্বক উল্লেখিত ভুমিদস্যুকে আইনের আওতায় নিয়ে আসার জন্য জেলা পুলিশ সুপার ও উখিয়া থানার ওসির হস্তক্ষেপও কামনা করছি। স্থানীয় চেয়ারম্যান নুরুল আমিন চৌধুরী ঘটনার সত্যতা স্বীকার করেন এবং এব্যাপারে একাধিকবার বৈঠকও হয়েছে বলে তিনি জানান।

Share this post

scroll to top