উখিয়ায় পুলিশ পরিচয় দিয়ে তল্লাশির নামে ছিনতাই লুটপাট হামলায় আহত ১

pic-13.jpg

উখিয়া ক্রাইম নিউজ ডেস্ক::

সম্প্রতি মেজর সিনহা হত্যাকান্ডের জের ধরে উখিয়া – টেকনাফের আইনশৃংখলার চেইন অব কমান্ড চরম বিপর্যয়ের মুখে বলে অভিযোগ উঠেছে। দিবারাত্রি আরকান সড়ক, গ্রামীন সড়ক, পাড়া মহল্লায় ঘটে যাচ্ছে চুরি, ডাকাতি, ছিনতাই, হত্যা, ধর্ষন, খুনসহ নানা অপরাধজনক কর্মকান্ডেরমত জঘন্য ঘটনা ঘটলেও আইনপ্রয়োগকারী সংস্থার লোকজন বিশেষ করে পুলিশ প্রশাসন নিরব দর্শকের ভুমিকায় রয়েছে বলে ভুক্তভোগী দিদার জানিয়েছেন।
২৬ আগষ্ট বুধবার সকাল সাড়ে ৮ টার দিকে রাজাপালং ইউনিয়নের শৈলেরডেবা গ্রামের ফজলুল করিমের ছেলে টমটম চালক মোঃ ইসমাঈল (১৬), উখিয়া টেকনিক্যাল স্কুল এন্ড কলেজ সংলগ্ন মামুনের স্থাপনা নির্মান কাজে টমটম যোগে শ্রমিক নিয়ে যাওয়ার পথে গাড়ীটি পাতাবাড়ী বৌদ্ধ মন্দির সড়কের সামনে পৌছলে ফলিয়া পাড়া গ্রামের মোঃ ইসলামের ছেলে এলাকার চিহ্নিত অস্ত্রধারী ও শীর্ষ সন্ত্রাসী রিদুওয়ান প্রকাশ ময়না উখিয়া থানা পুলিশের এএসআই পরিচয় দিয়ে গাড়ীটি গতিরোধ করে ধারালো অস্ত্রসস্ত্র দিয়ে টমটম চালক ইসমাঈলকে বেদড়ক মারধর পূর্বক গুরুতর জখম করে মাটিতে ফেলে দিয়েও ক্ষান্ত না হয়ে ফের তার পকেটে থাকা নগদ ১৯ হাজার ৪শত টাকা লুট করে বলে প্রত্যক্ষদর্শী দিদার বিষয়টি প্রতিবেদককে নিশ্চিত করেছেন। উক্ত পুলিশ পরিচয় দিয়ে ছিনতাই লুটপাটের ঘটনায় এলাকায় থমথমে অবস্থা বিরাজ করছে বলেও জানা গেছে। এসময় লোকজন এগিয়ে এসে অস্ত্রধারীর কবল থেকে আহতকে উদ্ধার করে উখিয়া হাসপাতালে ভর্তি করেন। এব্যাপারে আহতের বড় ভাই গিয়াস উদ্দিন কন্ট্রাক্টার বলেন, দিনে দুপুরে এরকম নেক্কারজনক ঘটনা আমি কখনো দেখিনি। তাই এরকম ডিজিটেল ডাকাতি ও ছিনতাইকারীর বিরুদ্ধে দ্রুত আইনগত ব্যবস্থা গ্রহন করা না হলে উখিয়ার আইনশৃংখলা পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রনে রাখা কঠিন হয়ে পড়বে। তাই তাকে অতিশিঘ্রই ছিনতাই ও হামলার সাথে জড়িত ময়না ডাকাতকে গ্রেপ্তার পূর্বক কঠিন শাস্তির আওতায় নিয়ে আসার জন্য জেলা পুলিশ সুপার ও র‌্যাব ১৫ এর হস্তক্ষেপ কামনা করছি। উখিয়া থানার ওসি মর্জিনা আক্তার মর্জি তদন্তপূর্বক ঘটনার সাথে জড়িতদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়া হবে বলে তিনি জানান।

Share this post

scroll to top