উখিয়ার মুছারখোলা বিট কর্মকর্তা আবছারের নেতৃত্বে পাহাড় কাটা ও বালি পাচার অব্যাহত

7.jpg

উখিয়া ক্রাইম নিউজ ডেস্ক::

সাধুরা সাবধান? উখিয়া রেঞ্জের থাইংখালী বনবিটের আওতাধীন মোছারখোলা বনবিট কর্মকর্তা আবছারের সহযোগিতায় ও স্থানীয় বালি সিন্ডিকেটের অন্যতম গডফাদাররা, এলাকার চিহ্নিত ইয়াবা কারবারী পালংখালী ইউনিয়নের ৭ নং ওয়ার্ডের ইউপি সদস্য নুরুল হক মেম্বার ও তার ছোট ভাই জিয়াবুল হক সরকারি বনভুমির বিশাল বিশাল পাহাড়ের সাথে ড্রেজার মেশিন বসিয়ে দিনরাত বালি উত্তোলনের পাশাপাশি ডাম্পার যোগে পাচার করে হাতিয়ে নিচ্ছে লাখ লাখ টাকা।
আর এতে পকেট ভারী হচ্ছে পাহাড় কেখো ও বিট কর্মকর্তার। ধ্বংস হচ্ছে সরকারি বনভুমির পাহাড় ও জীব-বৈচিত্র। কিন্তু দেখার কেউ নেই।
স্থানীয় পরিবেশবাদীরা জানান, কি অপরাধ ছিল পাহাড়ের ? মুছারখোলা বিট কর্মকর্তাকে টাকায় ম্যানেজ করে স্থানীয় ইউপি সদস্য ও তার ভাই পাহাড়ের উপর এ বর্বর নির্যাতন চালিয়ে যাচ্ছে।
অভিযুক্ত নুরুল হক মেম্বারের নিকট জানতে চাইলে তিনি পাহাড় কাটা ও বালি পাচারের কথা স্বীকার করে বলেন, আপনারা জামতলী সড়ক দিয়ে কেন আসলেন, তেলখোলা সড়কের জয়নাল মেম্বারের বাড়ীর পাশ দিয়ে মুছারখোলা আসলে বুঝতে পারতেন, কি হচ্ছে ? সবাই বিট অফিসারকে টাকা দিয়ে বালি পাচার ও পাহাড় কাটতেছে। তাই আমরাও কাটতেছি।
বিট কর্মকর্তা আবছার পাহাড় কাটা ও বালি পাচারের সত্যতা স্বীকার করলেও টাকা নেওয়ার কথা তিনি অস্বীকার করেন।

Share this post

scroll to top